অপরাধ - মে ১০, ২০১৫

সুন্দরবনে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ ডাকাত নিহত

rab
বাগেরহাট: সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের নন্দবালা খালে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ বনডাকাত মাইজ্যা বাহিনীর উপ বাহিনী প্রধানসহ দুই ডাকাত নিহত হয়েছেন।
এ ছাড়া ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শ্যুটারগান, দু’টি রাইফেল, ১০টি দেশি-বিদেশি বন্দুক এবং ১শ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

রোববার ভোর ৫টা ১০ থেকে ৫টা ৪০মিনিট পর্যন্ত এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- মাইজ্যা বাহিনীর উপ বাহিনী প্রধান আলমগীর (৩৫) ও ডাকাত রিপন (৩০) ।

র‌্যাব-৮ এর উপ-অধিনায়ক ও অপারেশন অফিসার মেজর আদনান কবির জানান, সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের বিভিন্ন এলাকা থেকে গত কয়েক দিন ধরে বনডাকাতরা বনজীবীদের কাছ থেকে নিয়মিত চাঁদা আদায় করে আসছিল। এ ছাড়া মুক্তিপণের দাবিতে বেশ কয়েজন বনজীবীকে অপহরণ করে বনডাকাত বাহিনী।

অপহৃত জেলেদের উদ্ধারে রোববার ভোরে অভিযান শুরু করে র‌্যাব-৮ এর একটি দল। এ দিন ভোরের দিকে বনের নন্দবালা খাল এলাকায় র‌্যাবের টহলদল পৌঁছালে বনে লুকিয়ে থাকা ডাকাতরা র‌্যাব সদস্যদের উপর গুলি ছুড়ে। এ সময় র‌্যাব আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি ছোড়ে। প্রায় আধাঘণ্টা ব্যাপী উভয় পক্ষের মধ্যে গুলি বিনিময় হয়। এক পর্যায়ে বনডাকাতরা গহিন বনে পালিয়ে যায়।

পরে বনের বিভিন্ন এলাকা তল্লাশি করে দুই বনডাকাতের মৃতদেহ ও ১টি শ্যুটারগান, ২টি রাইফেল, ১০টি বন্দুক ও ১শ রাউন্ড বন্দুকের তাজা গুলি উদ্ধার করে র‌্যাব সদস্যরা।

পরে স্থানীয় জেলেরা নিহত দুই বনডাকাতের সুন্দরবনের দুধর্ষ মাইজ্যা বাহিনীর উপ- বনদস্যু বাহিনী আলমগীর বাহিনীর প্রধান আলমগীর হোসেন ও তার অপর সহযোগী রিপন বলে সনাক্ত করে। নিহত ২ ডাকাতের মৃতদেহ ও আগ্নেয়াস্ত্র বাগেরহাটের মংলা থানায় হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করেছে।

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ/ এম ইউ


আরও পড়ুন