আইন আদালত - জুন ৯, ২০১৬ ৫:১৫ অপরাহ্ণ

রেজিস্ট্রি আইন???

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ডটকমঃ

প্রশ্নঃ যে সকল ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রির প্রয়োজন নেই

উত্তরঃ ১। আদালতের ডিক্রির বলে বিক্রয় হলে

২। সরকারী দাবী বা পাবলিক দাবী আদায়ের জন্য বেঙ্গল পাবলিক ডিমান্ড রিকভারী এ্যাক্ট, ১৯১৩ এর আওতাধীন দায়েরকৃত   সার্টিফিকেট মোকদ্দমা মূলে ভূমি নিলামে বিক্রি বা ক্রয় করা হলে ।

প্রশ্নঃ বন্ধকী সম্পত্তি বিক্রয় করা যাবে নাঃ

উত্তরঃ আইনের ৫৩ডি ধারার বিধান অনুসারে রেজিস্ট্রিকৃত বন্ধকভূক্ত সম্পত্তি বন্ধক গ্রহীতার লিখিত সম্মতি ব্যতীত পুনবন্ধক দেয়া যাবে না এবং বিক্রি করা যাবে না। এরূপ করা হরে তা বাতিল বলে গণ্য হবে।

বিক্রয় চুক্তি অবশ্যই রেজিস্ট্রিকৃত হতে হবেঃ
সম্পত্তি হস্তান্তর (সংশোধন) আইন ২০০৪ এর ৫৪এ ধারা অনুসারে স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির বিক্রয় চুক্তি হবে লিখিত ও রেজিস্ট্রিকৃত। সুনির্দিষ্ট প্রতিকার (সংশোধন) আইন ২০০৪ এর ২১এ ধারার বিধান অনুসারে আদালতের মাধ্যমে চুক্তি বলবতের দুই শর্ত হলোঃ
(১) লিখিত ও রেজিস্ট্রিকৃত বায়না ব্যতীত চুক্তি প্রবলের মামলা আদালতের মাধ্যমে বলবৎ করা যাবে না।
(২) বায়নার অবশিষ্ট টাকা আদালতে জমা না করলে মামলা দায়ের করা যাবে না।

প্রশ্নঃ দান দলিল রেজিস্ট্রি করা বাধ্যতামূলকঃ

উত্তরঃ রেজিস্ট্রেশন (সংশোধন) আইন ২০০৪ এ নতুন সংযোজিত ৭৮এ ধারা অনুসারে স্থাবর সম্পত্তির দানপত্র দলিল অবশ্যই রেজিস্ট্রি করতে হবে।

বিক্রয় চুক্তি ও বিক্রয়ঃ বিক্রয়ের চুক্তি ও বিক্রয় এক বিষয় নয়, বিক্রয়ের চুক্তি হচ্ছে

ক্রেতা ও বিক্রেতার মথ্যে একটি সমঝোতা। বিক্রয় ব্যতীত শুধু বিক্রয়ের চুক্তি দ্বারা কোন স্বত্ত্বের সৃষ্টি হয় না।

নাবালক ব্যক্তি সম্পত্তি বিক্রি করতে পারে না কিন্তু সম্পত্তি ক্রয়ের ক্ষেত্রে নাবালকের কোন বাধা নেই।

উইল বিলুপ্তিঃ নিন্মক্ত কারণে উইল বাতিল বলে গণ্য হবেঃ

(১) উইলের পর উইলদাতা বিকৃত মস্তিষ্ক হলে, মৃত্যুর পূর্বে তিনি সুস্থ হলেও।

(২) উইল গ্রহীতা দাতার আগে মারা গেলে।

(৩) উইল দাতা বা গ্রহীতা ধর্ম ত্যাগ করলে

(৪) উইল গ্রহীতা দাতাকে হত্যা করলে।

(৫) উইলকৃত সম্পত্তির উপর অন্য কারো অধিকার সাব্যস্ত হলে।

(৬) উইলকারী উইলকৃত সম্পত্তি বিক্রি বা দান করলে বা তাতে বাড়ি তৈরি করলে।

ধর্মীয় উদ্দেশ্যে উইলঃ ধর্মীয় উদ্দেশ্যে উইল করা হলে তাতে ওয়ারিশদের সম্মতি থাকলে সে উইল সম্পূর্ণ কার্যকর হবে, আর ওয়ারিশদের সম্মতি না থাকলে অছিতকারীর নিট সম্পত্তির ১/৩ অংশের উপর উইল কার্যকরী হবে।

দলিলঃ উইল ব্যতীত যে কোন লিখিতব বিবরণই দলিল, তবে রেজিষ্ট্রেশন আইনের বিধান মোতাবেক জমি বিক্রেতা এবং ক্রেতা সম্পত্তি হস্তান্তর করার জন্য যে চুক্তিপত্র সম্পাদন ও রেজিষ্ট্রি করেন তাকে সাধারণভাবে দলিল বলে।দলিল পরীক্ষা করার সময় দেখা আবশ্যক যে দলিল রেজিষ্ট্রি করা হয়েছে কিনা।রেজিষ্ট্রিকৃত দলিলে সাব রেজিষ্ট্রারের সই, তারিখ ও সীল থাকবে এবং দলিল নম্বর দেয়া থাকে। দলিলে দাতার স্বাক্ষর এবং সাক্ষির স্বাক্ষর আছে কিনা তা দেখতে হবে।দলিলে নিম্ন বর্ণিত বিষয় বিশেষভাবে পরীক্ষা করা প্রয়োজন হয়-

(ক) দলিল দাতা ও গ্রহীতার নাম,পিতার নাম ও ঠিকানা।

(খ) দলিল দাতার     বিক্রিত জমির মালিক হওয়া  সূ্ত্রের বিবরন অর্থাৎ উওরাধিকার/ক্রয়  অথবা অন্য সূএরে বিবরন।

(গ) জমির তপসিল অর্থাত মৌজার নাম,জে,এল,নম্বর,বিক্রিত জমির পরিমান, খতিয়ান ও দাগ নম্বর, জমির চৌহদ্দী ইত্যাদি।