আইন আদালত - জুন ১৪, ২০১৬ ৩:২৩ অপরাহ্ণ

কারাবন্দী জেএমবি নেতা বুলবুল ৫ দিনের রিমান্ডে

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডেস্ক :

কারাবন্দী জেএমবি নেতা ফুয়াদ ওরফে বুলবুলকে আরেক দফা ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি পেয়েছে পিবিআই।

বাকলিয়া থানায় দায়ের করা একটি হত্যা মামলায় (২৯/৫/১৫) তাকে শ্যোন অ্যারেস্টও দেখানো হয়। মূলত এই জিজ্ঞাসাবাদে গত ৫ জুন সংঘটিত পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় জেএমবির সম্পৃক্ততা যাচাই করা হবে।

মঙ্গলবার দুপুর পৌণে ৩টার দিকে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম হারুনুর রশীদের আদালত পিবিআইয়ের সাত দিনের রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

এরআগে গত বছরের ৫ অক্টোবরের পর থেকে কারাগারে থাকা জেএমবি নেতা বুলবুলকে বাকলিয়া থানায় দায়ের করা হত্যা মামলায়  (২৯/৫/১৫) মামলায় শ্যোন অ্যারেস্ট দেখানোর পাশাপাশি আদালতে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করে পিবিআই।

বিষয়টি বাংলামেইলকে নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্তী।

উল্লেখ্য, গত ২০১৫ সালের ৫ অক্টোবর কর্ণফুলীর খোঁয়াজ নগর থেকে জেএমবি অাস্তানা অাবিষ্কারের ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয় জেএমবি চট্টগ্রামের সামরিক প্রধান জাবেদ, বুলবুলসহ পাঁচজন। বিপুল বোমা-বিস্ফোরক উদ্ধারের ওই অভিযানের দ্বিতীয় দিনে গ্রেনেড বিস্ফোরণে মারা যায় সামরিক প্রধান জাবেদ। এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন সিএমপি ডিবির তৎকালীন এডিসি বাবুল অাক্তার।

এরপর গত মে মাসে বাবুল অাক্তারসহ অভিযানকারী দলকে হত্যা করতে একটি চিঠি দেয় কারাবন্দী বুলবুল। যেটি গাইবান্ধার জেএমবি অাস্তানা থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। সেটি পুলিশ সদর দপ্তর হয়ে সিএমপিতে আসলেও নিরাপত্তাহীনতায় থাকা বাবুল অাক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু গত ৫ জুন নগরীর জিইসি মোড়ে এক মিনিটের কমান্ডো হামলায় ছুরিকাঘাত ও গুলিতে খুন হন। এরপর থেকে এটিকে জঙ্গি হামলা হিসেবে বলে আসছে পুলিশ। যদিও আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক এখনো নিশ্চিত করতে পারেননি এটি জঙ্গি হামলা কি না।