অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এর একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প পরিদর্শন : নাজমা শোনালেন তার সফলতার কথা

রাজিবুল হক সিদ্দিকী, কিশোরগঞ্জ: 

গত ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখ মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মোঃ আক্তার জামীল কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব উপজেলার শিমুলকান্দি ইউনিয়ন এর রাজনগরে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প পরিদর্শন করেন। এ সময় তার সাথে উপজেলা সমন্বয়কারী মো: আতিকুর রহমান, দৈনিক গৃহকোণের সম্পাদক এম এ লতিফসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা সমন্বয়কারী জানান, রাজনগর দক্ষিণ গ্রাম উন্নয়ন সমিতির মোট সদস্য সংখ্যা ৬০ জন। এর মধ্যে পুরুষ সদস্য ১৪ জন এবং মহিলা সদস্য ৪৬ জন। সমিতির সদস্য কর্তৃক সি ত জমার পরিমাণ ২,৪৭,১০০/- টাকা। সরকার কর্তৃক প্রদত্ত উৎসাহ বোনাস এর পরিমাণ ১,৮১,৭০০/- টাকা। প্রশিক্ষণোত্তর (ঋণ তহবিল) সহায়তার পরিমাণ ২,৪৪,০০০/- টাকা। বর্তমানে সমিতির ঋণ গ্রহীতার সংখ্যা ৪৯ জন। ঋণ বিতরণের পরিমাণ ৭,৮৫,০০০/- টাকা এবং ঋণ আদায়ের পরিমাণ ২,৪৫,২৮৬/- টাকা।

পরিদর্শনকালে সমিতির সদস্য নাজমা বেগম কিশোরগঞ্জ জেলার একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ফোকাল পয়েন্ট অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মোঃ আক্তার জামীলকে তার সফলতার কথা শোনান। তিনি বলেন, বিগত ০৯/০৬/২০১৬ খ্রিঃ তারিখে ২০,০০০/- টাকা ঋণ নিয়ে ও নিজের জমাকৃত ২০,০০০/- টাকা মিলিয়ে তিনি ৪০,০০০/- (চল্লিশ হাজার ) টাকায় একটি গাভী ক্রয় করেন। বর্তমানে গাভীটি গড়ে প্রতিদিন ১৬ লিটার দুধ দিচ্ছে। নিজের পরিবারের জন্য ০১ লিটার রেখে বাকী ১৫ লিটার দুধ তিনি প্রতিদিন বিক্রি করছেন। সে হিসাবে এখন দুধ বিক্রয় করে প্রতিদিন তিনি পাচ্ছেন ৭৫০/- টাকা। তার পারিবারিক স্বচ্ছলতা দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে এবং পরিবারের সদস্যদের পুষ্টির মান উন্নত হচ্ছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) তরফদার মোঃ আক্তার জামীল জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ১০ টি বিশেষ উদ্যোগের একটি হচ্ছে- একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প। এ প্রকল্প সফলভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে পরিবারে দারিদ্র্য বলে কোন কিছু থাকবে না। তিনি সমিতির সকল সদস্যের সাথে দীর্ঘক্ষণ কথা বলেন এবং সংশ্লিষ্ট সকলকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ উদ্যোগ সফলভাবে বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দেন।

 

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ডটকম/০৮-০২-২০১৭ইং/ অর্থ 

Comments

comments

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ