ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে প্রতিবন্ধী মেয়েসহ মায়ের আত্মহত্যা

Muktijoddhar Kantho , Muktijoddhar Kantho
মে ১৩, ২০১৭ ৯:৫৬ অপরাহ্ণ

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ রিপোর্ট :

পঞ্চগড়ে প্রতিবন্ধী মেয়েসহ এক গৃহবধূ ট্রেনের নিচে ঝাঁপিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার দুপুরে সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের বকুলতলায় পঞ্চগড়-পার্বতীপুর লাইনে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার মির্জাপুর ইউনিয়নের বার আউলিয়া গ্রামের অরুণ বসাকের মেয়ে শ্যামলী বসাক (২২) ও তার মেয়ে মনি বসাক (২)। পারিবারিক কলহের জেরে শ্যামলী আত্মহত্যা করেছেন বলে পরিবারের সদস্যরা জানান।

প্রত্যক্ষদর্শী রশিদুল ইসলাম বলেন, একটু দূরেই তারা কয়েকজন বসে গল্প করছিলেন। এক সময় তারা ওই নারীকে কোলে শিশু নিয়ে ট্রেন লাইনের কাছ দিয়ে হেঁটে যেতে দেখেন। কিছুক্ষণ পর ট্রেন এলে ওই নারী ট্রেন লাইনের উপর উঠে যান এবং দুজনই কাটা পড়েন।

পরে সেখানে পাওয়া একটি ব্যাগে গৃহবধূর মোবাইল ফোন এবং তাদের পরিচয় লেখা একটি কাগজে পাওয়া যায়।

রশিদুল জানান, ব্যাগে পাওয়া মোবাইল থেকে ফোন করে মহিলার বাবা অরুণ বসাককে খবর দিলে তিনি ঘটনাস্থলে এসে মেয়ে ও নাতনিতে শনাক্ত করেন।

অরুণ বসাক বলেন, শ্যামলীর মেয়ে মনি বসাক বাক প্রতিবন্ধী ছিল। তিন বছর আগে ঠাকুগাঁওয়ে মেয়ের বিয়ে হয়। স্বামীর নির্যাতনে টিকতে না পেরে এক বছর পরই মেয়ে বাড়ি চলে আসেন। পরে এনজিও পরিচালিত একটি বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা শুরু করেন।

মেয়ের চিকিৎসার জন্য প্রতি সপ্তাহে শ্যামলী পঞ্চগড় আসতেন। শনিবারও একই কারণে তিনি বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন জানিয়ে অরুণ বলেন, পারিবারিক কলহের কারণেই সে তার শিশুকন্যাকে নিয়ে ট্রেনের নিচে জীবন দিয়েছে।

পঞ্চগড় থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. রবিউল হাসান সরকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, স্বামীর ওপর রাগ করে বা বাবার ওপর অভিমান করেই শ্যামলী আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন। বিষয়টি জিআরপি পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৩-মে-২০১৭ইং/নোমান

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া