খুলনা থেকে অপহৃত যুবক বাজিতপুরে উদ্ধার, অস্ত্র গুলিসহ আটক ৬

মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ ।।

মুক্তিপণের দাবিতে খুলনা থেকে প্রাইভেট কারসহ অপহৃত যুবক মোহাম্মদ মোনায়েম খান মিথুন (২৬)কে জেলার বাজিতপুর থেকে উদ্ধার করেছে র্যাব।১৭ জুন শনিবার র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা এক বিশেষ অভিযানে মাধ্যমে তাকে উদ্ধার করে।এসময় অপহরণ চক্রের ছয় সদস্যকে আটকসহ তাদের কাছ থেকে আমেরিকায় তৈরি একটি পিস্তল,দুইটি ম্যাগাজিন ও ১১ রাউন্ড অ্যামুনেশন উদ্ধার করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, বাজিতপুর উপজেলার সাতবাড়ীয়া গ্রামের মোহাম্মদ মতিউর রহমান ডুলু মিয়ার ছেলে ওমর ফারুক রাসেল (৩৫),একই গ্রামের মৃত হাজী সাইদুর রহমানের ছেলে গোলাম কাউছার মন্টু (৩৮),একই উপজেলার পূর্ব কুতুবপুর গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে রাকিবুল হাসান (২০),নগরভান্ডা গ্রামের মোহাম্মদ মুছা মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ মান্নান (৩০),তাড়াইল উপজেলার আকুবপুর গ্রামের মোহাম্মদ নুরুল ইসলামের ছেলে সাঈদ ইবনে নূর শিহাব (২৮) ও ভৈরবের সাদিকপুর গ্রামের ইমাম উদ্দিনের ছেলে সোহানুর রহমান (১৯)।

১৯ জুন সোমবার বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপতিতে র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ জানান,চলতি বছরের ৭ই জুন খুলনা থেকে একটি প্রাইভেটকারসহ মোহাম্মদ মোনায়েম খান মিথুন নিখোঁজ হন।গত ১৬ই জুন এ অপহরণের বিষয়টি মোনায়েম খানের বড় বোন মারিয়া জুলি র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্পকে জানায়।এর প্রেক্ষিতে র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্প এ ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ শুরু করে।

অপহরণকারীদের পক্ষ থেকে অপহৃত মিথুনের বড় বোনের কাছে বিভিন্ন মাধ্যমে ৩৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণের টাকার জন্য বার বার ফোন করা হত।এমনকি টাকা না দিলে মিথুনকে হত্যার হুমকি দেয়া হত।এ মোবাইল ফোনের সিম কার্ডের সূত্র ধরে অপহরণকারীদের অবস্হান নিশ্চিত করে র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্প।এবং তারা জানতে পারে অপহরনকারীরা জেলার বাজিতপুরে অবস্হান করছে।

১৭ই জুন সোমবার অপহৃতের বড় বোনের কাছে অপহরণকারীরা এসএ পরিবহনে মুক্তিপণের টাকা পাঠাতে বলে।এর তথ্যের ওপর ভিত্তি করে র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ,স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি জুয়েল চাকমা ও কিশোরগঞ্জ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা স্বপনের নেতৃত্বে র্যাব সদস্যরা ছদ্মবেশে কিশোরগঞ্জ এসএ পরিবহনের আশপাশে অবস্হান করে।পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী অপহৃতের বড়বোন কিশোরগঞ্জ এসএ পরিবহনে করে টাকা পাঠানো হয়েছে বলে অপহরণকারীদের জানান।এর অল্প কিছুক্ষণ পরেই ছদ্মবেশি র্যাব সদস্যরা কিশোরগঞ্জ এসএ পরিবহনের ম্যানেজারের মোবাইল নাম্বার থেকে তাদের নামে খুলনা থেকে সাত লাখ টাকা পাঠানো হয়েছে বলে অপহরণকারীদের জানান।এ ফাঁদে পা দিয়ে এ অপহরণকারী চক্রের ২ সদস্য ওমর ফারুক রাসেল ও সাঈদ ইবনে নূর সিহাব টাকা নিতে আসলে টাকা গ্রহণের সময় র্যাব ১৪ ক্যাম্পের অভিযানিক দল তাদের আটক করে।

পরে আটককৃতদের তথ্য অনুযায়ী ওমর ফারুক রাসেলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে র্যাব অপহৃত মোনায়েম খান মিথুন ও তার ব্যবহৃত প্রাইভেট কারটি উদ্ধার করে।এসময় সেখান থেকে অপহরণ চক্রের অন্য চার সদস্য গোলাম কাউছার মন্টু,রাকিবুল হাসান রাকিব ,সোহানুর রহমান ও মান্নান মিয়াকে আটক করা হয়।

এসময় আটককৃতদের জবানবন্ধী অনুযায়ী ওমর ফারুক রাসেলের বাসা থেকে তাদের ব্যবহৃত একটি আমেরিকায় তৈরি পিস্তল,দুইটি ম্যাগাজিন,১১ রাউন্ড ত্র্যামুনেশন,৭টি মোবাইল,৭টি সিম কার্ড ও নগদ ১ লক্ষ ৫ হাজার ৫শত টাকা উদ্ধার করা হয়।চক্রটি এ এলাকায় এ সকল অস্ত্র ব্যবহার করে চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছিল।

এ ব্যপারে আটককৃত সকলের বিরুদ্ধে ১৯৭৮ সালের অস্ত্র আইনের ১৯ ধারায় বাজিতপুর থানায় মামলা রুজুর প্রস্তুতি চলছে বলে র্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কম্পানি কমান্ডার শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ জানিয়েছেন।

 

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৯-০৬-২০১৭ইং/ অর্থ 

Comments

comments

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ