চট্টগ্রামে ৩৮০ কোটি টাকা ঋণ বিশ্বব্যাংকের

অর্থনৈতিক রিপোর্ট :

বন্দর নগরী চট্টগ্রামের পানি, স্যানিটেশন এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থার অবকাঠামোগত উন্নয়নে ৪ কোটি ৭৫ লাখ মার্কিন ডলার (৩৮০ কোটি টাকা) অতিরিক্ত অর্থ ঋণ দিয়েছে বিশ্বব্যাংক। শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

চলমান প্রকল্পে অতিরিক্ত সহয়তা হিসাবে এ টাকা দিচ্ছে সংস্থাটি। এর ফলে দেশের প্রধান বন্দর নগরীটির প্রায় ৬ লাখ ৫০ হাজার নাগরিকের নিরাপদ ও নির্ভরযোগ্য পানি ব্যবহারে সহায়তা করবে।

ইতোমধ্যে ২১ কোটি ৮৫ লাখ ডলার ব্যয়ে চট্টগ্রামের পানি সরবরাহ ব্যবস্থার উন্নতি ও স্যানিটেশন প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ কাজে নতুন করে পানি সরবরাহে পাইপ লাইন বসানেো ও পানি শোধনাগার স্থাপনে আরও ৪ কোটি ৭৫ লাখ ডলার দিতে যাচ্ছে বিশ্বব্যাংক।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই অর্থ চট্টগ্রাম ওয়াসাকে মধুনাঘাট পানি শোধনাগার প্লান্ট ও পতেঙ্গা বোস্টার পাম্পিং স্টেশন নির্মাণের পাশাপাশি কালুরঘাট থেকে পতেঙ্গা স্টেশন পর্যন্ত সরবরাহ লাইনের উন্নতিতে সাহায্য করবে। নতুন করে অর্থায়নের পাশাপাশি প্রকল্প বাস্তবায়নের মেয়াদ ২০১৮ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০২০ সালের মার্চ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

বিশ্বব্যাংকের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা-আইডিএ থেকে দেয়া এ ঋণের জন্য বাংলাদেশকে কোনো সুদ দিতে হবে না। তবে শূন্য দশমিক ৭৫ (০.৭৫) শতাংশ হারে সার্ভিস চার্জে ছয় বছরের রেয়াতকালসহ ৩৮ বছরে এ ঋণ শোধ করতে হবে।

বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর চিমিয়াও ফান বলেছেন, চট্টগ্রাম মহানগরীর মাত্র অর্ধেক মানুষ সুপেয় পানি পেয়ে থাকে। অপর্যাপ্ত স্যুয়ারেজ ও ড্রেইনেজ সমস্যায় ভোগান্তিও পোহাতে হয়, যার সঙ্গে যোগ হয় জলাবদ্ধতার সমস্যা। এ অর্থায়ন শহরের প্রান্তিক বস্তিবাসীসহ সবার দুর্ভোগ লাগবে সহায়ক হবে।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/২৫জুন২০১৭ইং/নোমান

Leave A Reply

Your email address will not be published.