ইতিহাস সৃষ্টি : এন্টার্কটিকায় বিয়ের আয়োজন!

রকমারি রিপোর্ট :

কেউ সমুদ্রের গভীর পানির নিচে বিয়ে করেছেন, কেউ কেউ বিয়ের জন্য পাড়ি জমিয়েছেন মহাশূন্যে। এবার প্রথমবারের মতো ব্রিটিশ এন্টার্কটিকায় বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ইতিহাস তৈরি করলেন এক যুগল।
পৃথিবীর পঞ্চম বৃহত্তম মহাদেশ অ্যান্টার্কটিকা। দক্ষিণ মেরুতে অবস্থিত অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশের গড়ে ৯৮ ভাগই প্রায় দুই কিলোমিটার পুরু বরফাবৃত। এই মহাদেশে বছরের শীতলতম সময়ে তাপমাত্রা গড়ে মাইনাস ৬৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকে। প্রচণ্ড ঠান্ডার কারণে এই মহাদেশে স্থায়ী কোনো মানুষের বসবাস নেই।
সারা বছর চার পাঁচ হাজার মানুষ গবেষণার কাজে সেখানে বেড়াতে যান। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দিয়ে এক দম্পতি নিজেদের বিয়ের জন্য বেছে নিয়েছিলেন এন্টার্কটিকার এই হিমশীতল ঠান্ডার পরিবেশকে। এন্টার্কটিকায় বিয়ে করে অনন্য নজির স্থাপন করা এই জুটি হলেন জুলি বাউম এবং টম সিলভেস্টার।
দুই জনই পেশায় পোলার অঞ্চলের গাইডের কাজ করেন। তাই বিয়ের ভেন্যু হিসেবে তাদের কাছে এটাই ছিল প্রধান পছন্দের জায়গা। সারা পৃথিবীতে ভ্রমণ করে বেড়ানো এই যুগল চাইতেন পৃথিবীর একেবারে প্রত্যন্ত কোনো জায়গায় নিজেদের বিয়ে আনুষ্ঠানিকতা সারবেন। শেষ পর্যন্ত ঘটলও তাই। মাইনাস ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার মধ্যে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সমপন্ন হয়েছে।
বিয়েতে অতিথি হিসেবে হাজির ছিলেন তাদের মতোই ব্রিটিশ এন্টার্কটিক সার্ভে সেন্টারে কাজ করা তাদের কিছু সহকর্মী। কাছের আত্মীয়-স্বজনদের বিয়েতে নিমন্ত্রণ করলেও নিশ্চিতভাবেই কেউ সেখানে যেতে হাজির হতেন না। ৩৪ বছর বয়সী নববধূ বলেন, বিয়ের জন্য এর চেয়ে ভালো জায়গা আর কী হতে পার! খবর টেলিগ্রাফ।

 

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৯-জুলাই২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Leave A Reply

Your email address will not be published.