নান্দাইলে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল চরম বিপর্যয় : জিপিএ-৫ শূন্য

মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) থেকে :
নান্দাইল উপজেলার ৬টি কলেজে ২৩ জুলাই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার ঘোষিত ফলাফলে চরম বিপর্যয় ঘটেছে। কোন কলেজ থেকেই জিপিএ৫ পায় নি। পাশের হার ৩৮.০৫, এতে অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও সচেতন মহলে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। ৬টি কলেজ থেকে মোট ২০৭৬জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ৭৯০জন। অকৃতকার্য হয়েছে ১২৮৬জন পরীক্ষার্থী। নান্দাইলে কলেজ পর্যায়ে পাশের হার ৩৮.০৫%।সবচেয়ে বেশী ফলাফল বিপর্যয় ঘটেছে খুররম খাঁন চৌধূরী কলেজে। উপজেলার ৬টি কলেজের ফলাফলের খতিয়ানঃ শহীদ স্মৃতি অাদর্শ ডিগ্রি কলেজ (সদ্য সরকারি ঘোষিত)থেকে ৬৯৫জন অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ২৯৭জন। অাইসিটিতে বেশী ফেল করেছে বলে অপর একটি সুত্র জানিয়েছে। পাশের হার মাত্র ৪২.৭৩%।
এডভোকেট অাব্দুল হাই কলেজ থেকে ৬৬জন অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ২০জন পাশের হার ৩০.৩১%, সমূর্ত্ত জাহান  মহিলা কলেজ থেকে পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে ৫৩২জন পাশ করেছে ২৩৫জন, পাশের হার ৪৪.২৬%, খুররম খাঁন চৌধূরী কলেজ থেকে ৪০১জন পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ৮০জন পাশের হার ১৭.৭৩%, অানোয়ারুল হোসেন খাঁন চৌধূরী কলেজ থেকে ৭০জন পরীক্ষায় অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ৩৫জন,পাশের হার ৫০% মুসলী স্কুল এন্ড কলেজ ২৬২জন অংশ গ্রহন করে পাশ করেছে ১২৩জন পাশের হার ৪৬.৯৫%। অপর দিকে উচ্চমাধ্যমিক সমমান পর্যায়ে ১৫টি মাদরাসা থেকে অালিম পরীক্ষায় ৮৭৮জন অংশ গ্রহন করে ৫৬৯জন পরীক্ষার্থী কৃতকার্য হয় পাশের হার ৬৪.৮০%। ৩জন জিপিএ-৫ পেয়েছে।
আর এদিকে বিএম শাখা থেকে ২১৭জন অংশগ্রহন করে ১৬২জন পাশ করেছে,পাশের হার ৭৪.৬৫% বলে সংশ্লিষ্ট দপ্তর থেকে জানা গেছে।
নান্দাইল প্রেসক্লাব সূত্রে জানা যায়, নান্দাইলের ৩টি কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি স্থানীয় সাংসদ অানোয়ারুল অাবেদীন খাঁন তুহিন সাহেবের সাথে ফলাফল বিপর্যয় নিয়ে মোবাইল কথা বললে তিনি এবারে নান্দাইলে উচ্চ মাধ্যমিস পরীক্ষার ফলাফল বিপর্যয়ে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, শিক্ষকরা পাঠদানে মনোযোগী নন। এছাড়া শিক্ষার্থীরাও পাঠ গ্রহনে অাগ্রহী নন। আর আসল কথা ফলাফল বিপর্যয় শুধু নান্দাইল নয়, সারাদেশেই বিপর্যয় ঘটেছে।
তিনি অারো জানান,অাগামী পরীক্ষায় ভাল ফলাফলের জন্য প্রতিটি কলেজে কলেজ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ফ্রি কোচিং এর ব্যবস্থা করা হবে এবং পরীক্ষার্থীরা যাতে ভাল ফলাফল করতে পারে তার জন্য সবধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।ফলাফল বিপর্যয়ের বিষয় জানতে জানতে চেয়ে শহীদ স্মৃতি অাদর্শ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ নাজিম উদ্দীন অাহমেদের সাথে মোবাইল ফোনে কথা বললে তিনি জানান, বর্তমানে শিক্ষার্থীরা পাঠ গ্রহনে অাগ্রহী নয় তাদেরকে অনেক চেষ্টা করেও ক্লাসমূখী করা যাচ্ছে না। ফলাফল ভাল করার জন্য সামনে পরীক্ষার সবধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/২৯-জুলাই২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ