রুবির নতুন ফেসবুক স্ট্যাটাস!

বিনোদন রিপোর্ট :

সালমান শাহর মৃত্যু নিয়ে হঠাৎ সরগরম হয়ে উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়া। আর সেটা শুরু হয়েছে গত সোমবার জনপ্রিয় এই চিত্রনায়কের হত্যা মামলার অন্যতম আসামি রুবির একটি ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে।

সেই ভিডিওতে সালমান হত্যাকাণ্ডের জন্য নিজের স্বামীর পাশাপাশি সালমানের শুশুরবাড়ির লোকজনকেও দায়ী করেছেন তিনি। একই সঙ্গে ভিডিওতে রুবি নিজেকে সালমান হত্যার একমাত্র জীবিত প্রমাণ দাবি করে, এ হত্যার সাক্ষী দেওয়ারও ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন।

এদিকে, এমন অভিযোগ উঠার পর গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে রুবির বক্তব্যকে মোটেই পাত্তা দিচ্ছেন না সালমান শাহর শ্বশুর সাবেক ক্রিকেটার শফিকুল হক হীরা। তিনি রুবিকে উন্মাদ আখ্যা দিয়েছেন। পাশাপাশি সালমানের মা নীলা চৌধুরী তাকে টাকা দিয়েছেন এই কাজ করাচ্ছেন বলেও মন্তব্য করেন শফিকুল হক হীরা।

এর পরিপ্রেক্ষিতে আজ মঙ্গলবার এক স্ট্যাটাসে হীরার উদ্দেশে কয়েকটি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছেন রুবি। তিনি বলেন, ‘সামিরার (সালমানের স্ত্রী) পরিবারকে বলো শরীর ও মনের দিক থেকে আমি অনেক ভালো আছি। তারা কীভাবে প্রমাণ করবে যে আমি মানসিকভাবে অসুস্থ?

এরপর রুবি বাংলায় লেখেন, ‘সামিরার বাবা শফিকুল হক হীরা কী করে আমার সমন্ধে এতো কিছু জানে? আমি তো উনাকে দেখিনি ১৯৯৭ সালের পরে। আমাকে নিয়ে এতো খবর তিনি কী করে জানেন? কার কাছ থেকে তিনি এতো খবর পান। মাথা খারাপ মানুষ নিউইয়র্কে হোটেল ভাড়া নিতে পারে না। আমি হোটেলে তিনদিন ধরে আছি। একা। একমাত্র আল্লাহ তায়ালার ওপর ভরসা করে। ’

”পঁয়সা আমার আছে। কেউ জানে না। নীলা চৌধুরী দেই নাই। নীলা ভাবিকে আমি শেষবার দেখছি ১৯৯৫ সালে। যেদিন সালমান শাহ মানে ইমন মারা যায়। ”

আবারও রুবির প্রশ্ন, আমাদের সবাই সালমান ও সামিরা বাসায় যাওয়ার (সালমানের মৃত্যুর দিন) পর সামিরা কেন আমাকে না জানিয়ে আমার ছেলে ইহসান জামিল ভিকিকে একটা কাপড়ের পুটলি দিয়েছিল ওদের বাসা থেকে আমাদের ছাদে ফেলার জন্য? কি ছিল ওই কাপড়ের পুটলিতে? কেন আবুলের (কাজের লোক) কাছে সালমান শাহর সুইসাইড নোট ছিল?

প্রসঙ্গত, সালমান শাহ হত্যা মামলার যে ১১ জনকে আসামি করা হয়েছে, সেই তালিকায় নাম রয়েছে রাবেয়া সুলতানা রুবি ওরফে রুবির। যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভেনিয়ার ফিলাডেলফিয়াতে চাইনিজ স্বামী ও দুই সন্তানসহ বসবাস অনেকদিন ধরে বসবাস করছিলেন তিনি। সোমবারের পর মঙ্গলবার তার এই ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে অনেকের মনে আবারও নতুন কৌতুহলের জন্ম হয়েছে।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/০৮-আগস্ট২০১৭ইং

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ