কুড়িগ্রামে পানিবন্দি অর্ধশতাধিক গ্রামের মানুষ

কুড়িগ্রাম: কুড়িগ্রাম জেলায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছে অন্তত পাঁচ হাজার মানুষ। ধরলা নদীর পানি বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই করছে। ব্রহ্মপুত্র, ধরলা ও দুধকুমারসহ প্রধান প্রধান নদ-নদীতে পানি দ্রুতগতিতে বাড়ছে। ফলে দ্বীপচর ও নদ-নদী তীরবর্তী এলাকায় বন্যা আতংক দেখা দিয়েছে। ইতিমধ্যে চর, দ্বীপচর ও নদী তীরবর্তী নিম্নাঞ্চলের অর্ধ শতাধিক গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

কুড়িগ্রাম পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় ধরলা নদীতে ৪৬ সে.মি., ব্রহ্মপুত্রে ২৬ সে.মি, দুধকুমারে ৫৪ সে.মি. ও তিস্তায় ৩ সে.মিটার পানি বেড়েছে।

কুড়িগ্রাম সদর, ফুলবাড়ী, নাগেশ্বরী, ভুরুঙ্গামারী, উলিপুর, চিলমারী ও রাজীবপুরের চরাঞ্চলের বেশ কিছু ঘরবাড়িতে দ্বিতীয় দফা পানি ঢুকতে শুরু করেছে। এদিকে পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে হেমেরকুঠি, জগমোহনের চর, চর জয়কুমরসহ কয়েকটি এলাকায় ভাঙনের তীব্রতা বেড়েছে। ধরলার ভাঙনে বাংটুর ঘাট, হেমেরকুঠি, সারোডোব এলাকায় বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ঝুঁকিতে পড়েছে।

গত জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহে প্রথম দফা বন্যায় প্রায় আড়াই লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়েছিল। নদী ভাঙনের শিকার হয়েছিল সাড়ে চার হাজার পরিবার।

 

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.