বাণিজ্যের লক্ষ্যমাত্রা দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলার বাংলাদেশ-থাইল্যান্ডের

অর্থনৈতিক রিপোর্ট :

২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ ও থাইলান্ডের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলারে উন্নীত করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া বাণিজ্য ঘাটতি কমাতে থাইল্যান্ডে ৩৬ ধরনের পণ্য রফতানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা চেয়েছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ-থাইল্যান্ড জয়েন্ট ট্রেড কমিশনের মন্ত্রী পর্যায়ের চতুর্থ সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এতে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এবং থাইল্যান্ডের পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেশটির বাণিজ্যমন্ত্রী আপিরাদি তানট্রাপর্ন। পরে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে উভয় দেশের বাণিজ্যমন্ত্রী এতথ্য জানান

এ সময় বাংলাদেশের বাণিজ্য সচিব শুভাষীষ বসু উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী দুই দেশের মধ্যে ৫ম জেটিসি বৈঠক ব্যাংককে অনুষ্ঠিত হবে। ৪র্থ বৈঠকটি ৪ বছর পর অনুষ্ঠিত হলেও জেটিসির ৫ম বৈঠক আগামী ২ বছরের মধ্যে যেকোনও সুবিধাজনক সময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলেও বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ড দুদেশই বাণিজ্য সম্প্রসারণে এফটিএ (মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি) করতে আগ্রহী। এ বিষয়ে সম্ভাব্যতা যাচাইর কাজও চলছে। তবে যতোদিন পর্যন্ত এই এফটিএ না হবে, ততদিন পর্যন্ত যেন বাংলাদেশি পণ্য থাইল্যান্ডের বাজারে শুল্কমুক্ত সুবিধা পায়, সে জন্য আলোচনা করা হয়েছে। একইসঙ্গে বাংলাদেশের বিএসটিআইয়ের সনদের স্বীকৃতি চেয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ থেকে রফতানি বাড়াতে কৃষি, মৎস্য পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণে কারিগরি সহায়তাও চাওয়া হয়েছে বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ডের মধ্যে দুই দিনের চতুর্থ জয়েন্ট ট্রেড কমিটির (জেটিসি) সভায়।

এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ জানান, ‘থাইল্যান্ডের টিএসটিআই ও বাংলাদেশের বিএসটিআইয়ের মধ্যে একটি এমওইউ স্বাক্ষরিত হবে। বাংলাদেশ নির্মিতব্য ১০০টি ইকনোমিক জোনের যে কোনো একটিতে থাইল্যান্ডের ব্যাবসায়ীদের বিনিয়োগের আহবান জানান। তিনি মনে করেন দুদেশের ব্যবসায়ীরা যদি দুদেশ সফর করেন তাহলে দুদেশের বাণিজ্য আরও সম্প্রসারিত হবে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ ও থাইল্যান্ডের মধ্যে দুই দিনের চতুর্থ জয়েন্ট ট্রেড কমিটির (জেটিসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রথমদিন দুই দেশের সচিব পর্যায়ে এবং দ্বিতীয় দিন বৃহস্পতিবার দুই দেশের বাণিজ্যমন্ত্রী অংশ নেন।

এর আগে ২০১৩ সালে জেটিসির তৃতীয় সভা থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১১-আগস্ট২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.