ঈশ্বরগঞ্জে প্রেমিকাকে গণধর্ষণ : গ্রেফতার ১

আজিজুল হাই সোহাগ, ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি :

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রলোভন দিখিয়ে ধর্ষণ করেছে প্রেমিক সহ কয়েক যুবক। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে (১১ আগস্ট) ৯ জনকে অভিযুক্ত করে ঈশ্বরগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। শনিবার একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মামলার এজহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার রাজীবপুর ইউনিয়নের ভাটি চরনওপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে জুয়েল মিয়া (৩২) ’র সাথে গোপালগঞ্জ জেলার কোটালীপাড়া থানায় বান্দবাড়িগ্রামের এক নারীর সাথে একবছর পূর্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পরিচয় হয়। এরপর থেকে দু’জনের মধ্যে মুঠোফোনে যোগাযোগের একপর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

গত ৬ আগস্ট রোববার রাত ৯টায় জুয়েল মিয়ার বিয়ের প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে ওই নারী বড় বোনকে সঙ্গে নিয়ে ঈশ্বরগঞ্জে আসে। সেখান থেকে তাদেরকে জুয়েল সিএনজি যোগে রাজীবপুর ইউনিয়নের ভাটি চরনওপাড়া গ্রামের লাটীয়ামারী বাজার সংলগ্ন ব্রহ্মপুত্র নদের বালুর চরে নিয়ে যায়। বড় বোনকে আটকে রেখে জুয়েল ও তার সহযোগিরা ছোট বোনকে রাতভর পালাক্রমে ধর্ষণকরে এবং তাদের সঙ্গে থাকা স্বর্ণালংকার, দু’টি মোবইলফোন , ক্যামারা, নগদ টাকাসহ অন্যন্যা জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়ে যায়। ভোরে অসুস্থ্য অবস্থায় বড় বোনের সহায়তায় অদূরে আক্তারুজ্জামান শরাফতের বাড়িতে আশ্রয় নেয় । আকতারুজ্জামান ঘটনাটি জানালে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যন ঘটনাস্থলে যান এবং আশে-পাশের লোকজনের কাছ থেকে এ ঘটনার সত্যতা জেনে ওই নারীকে আইনের সহয়তা নিতে বলেন।

ইউপি চেয়ারম্যান মোদাব্বিরুল ইসলাম জানা, এলাকায় গিয়ে ঘটনার সত্যতা জানা গেছে এবং ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের পরিচয় পাওয়া গেছে। ওই নারীকে আইনের আশ্রয় নিতে বলা হয়েছে।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রপ্ত কর্মকর্তা বদরুল আলম খান বলেন, এ ঘটনায় ১জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং অন্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১২-আগস্ট২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.