নিউইয়র্কে আমাদের নান্দাইলবাসী ইউএসএ’র সৌহার্দপূর্ণ বনভোজন

মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, নান্দাইল (ময়মনসিংহ) ।।
নিউইয়র্কে নানা আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে আমরা নান্দাইলবাসী (ময়মনসিংহ) ইউএসএ’র বনভোজন। অনন্য সম্প্রীতি আর সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশে স্থানীয় সময় গত ৬ আগস্ট রোববার নিউইয়র্কের প্রাকৃতিক সোৗন্দর্যমন্ডিত বেলমন্ট লেক স্টেট পার্কে এ বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়। যুক্তরাষ্ট্রে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা নান্দাইলবাসী যোগ দেন বর্ণাঢ্য এ আয়োজনে। আমরা নান্দাইলবাসী ময়মনসিংহ ইউএসএ’র সদস্য ও তাদের আত্মীয় স্বজনরা পার্কের খোলা মাঠে খেলাধুলাসহ নানান আনন্দে মেতে ওঠেন এদিন। বারবিকিউসহ মজাদার সব খাবার উপভোগ করেন সকলে। নতুন প্রজন্মের উপস্থিতিতে বনভোজনটি পরিনত হয় নান্দাইলবাসীর মিলন মেলায়।
আয়োজকরা জানান, নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন স্টেটে বসবাসরত বিপুল সংখ্যক প্রবাসী নান্দাইলবাসী এ বনভোজনে অংশ নেন। এদিন সকাল থেকেই নান্দাইল প্রবাসীরা সমবেত হতে থাকেন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত এ বনভোজন স্থলে। দীর্ঘদিন পর নান্দাইলপ্রবাসীরা একত্রিত হতে পেরে মেতে ওঠেন নানান আলাপচারিতায়। ঘুরে ঘুরে উপভোগ করেন অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। আমরা নান্দাইলবাসী (ময়মনসিংহ) ইউএসএ’র মো. রুকন উদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সালাউদ্দিন আখন্দের পরিচালনায় অন্যদের মধ্যে বনভোজনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন পলাশ আখন্দ, জিল্লুর রহমান, বাদশা খান, এনামুল হক, আনোয়ার পারভেজ, আসাদ উল্লাহ, মো. নুরুল হুদা জুয়েল, সানজিদা আক্তার, সোহানা হোসাইন, তাহমিনা সুলতানা, উর্মি খান, উর্মি রহমান, শিরিন, লাভলী, তানিয়া রফিক, মারিনা ইসলাম, সানিয়া হাবিব, ইসরাত জাহান, মার্জিনা বানু, শাম্মী আক্তার, আসমা এনামুল, মৌসুমী জুয়েল, সুমি, সাদিয়া, ইসরা, ঈশিকা প্রমুখ।
অতিথিদের মধ্যে ছিলেন নেত্রকোনা জেলা এসোসিয়েশন ইউএসএ’র সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলাম আনোয়ার, প্রধান সমন্বয়কারী মো. আনোয়ারুল আলম ভূইয়া, বেলায়েত হোসেন, হাবিবুর রহমান, রফিকুল ইসলাম, শেখ জুবায়ের শাহরিয়ার, ফারুক, মোহাম্মদ চৌধুরী, ডা. ইকবালসহ কমিউনিটি নের্তৃবৃন্দ।
আমরা নান্দাইলবাসী ময়মনসিংহ ইউএসএ’র সদস্যরা বলেন, প্রবাসে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা নান্দাইলবাসীর মধ্যে সেতুবন্ধন রচনার সামান্য প্রয়াস আজকের এ বনভোজন। প্রবাসী নান্দাইলবাসীসহ আমন্ত্রিত অতিথিদের শুভেচ্ছা জানিয়ে আয়োজকরা বলেন, সকলের প্রচেষ্টায় সফল হয়েছে এই সুন্দর নির্মল আয়োজন। তারা বলেন, একটি বৃহৎ পরিবারের মত সম্প্রীতি ও সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাবে তাদের এ প্রয়াস। যার যার অবস্থান থেকে দেশে-প্রবাসে নান্দাইলবাসীর কল্যাণে কাজ করার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন তারা বলেন, প্রবাসে জন্ম নেয়া ও বেড়ে ওঠা নতুন প্রজন্মের কাছে দেশীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরার প্রচেষ্টা চালাবে তারা। এজন্য সকলের সার্বিক সহযোগিতা, পরামর্শ ও দো’য়া কামনা করেন তারা। অতিথিরাও তাদের সাফল্য কামনা করেন।

 

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ডটকম/ ১২-০৮-২০১৭ইং/ অর্থ 

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.