ভার্জিনিয়ায় বর্ণবাদবিরোধী সমাবেশে হামলা : নিহত ৩

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট :

যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়ার শার্লটসভিলে এলাকাতে বর্ণবাদবিরোধী ও শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীদের মধ্যে সংঘর্ষে একজন এবং ঘটনা পর্যবেক্ষণকারী পুলিশের হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে দুইজন নিহত হয়েছে। অর্থাৎ সব মিলে ওই ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে তিনজনে। আহত হয়েছে আরও বেশ কয়েকজন। মার্কিন সংবাদমাধ্যম লস এঞ্জেলস টাইমস খবরটি নিশ্চিত করেছে।

বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবর থেকে জানা গেছে, শনিবার শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদীদের একটি মিছিল বর্ণবাদবিরোধীদের সমাবেশস্থলে এলে সংঘর্ষের সূচনা হয়। সে সময় শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অংশগ্রহণকারীদের ওপর হামলে পড়ে একটি চলন্ত গাড়ি। ঘটনাস্থলে ১ জন নিহত এবং ১৯ জন আহত হন। পরে ঘটনা পর্যবেক্ষণে ভার্জিনিয়া পুলিশের মোতায়েনকৃত একটি হেলিকপ্টার শহরটির কাছে বিধ্বস্ত হলে দুই পুলিশ সদস্য নিহত হন।

সংঘর্ষের পর ভার্জিনিয়া অঙ্গরাজ্যে জারি করা হয় জরুরি অবস্থা।

দাস প্রথার পক্ষে লড়েছিলেন, সম্প্রতি এমন এক কনফেডারেটপন্থী জেনারেলের মূর্তি অপসারণ করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে শার্লটসভিলে শহরে শত শত শ্বেতাঙ্গ জাতীয়তাবাদী শনিবার মিছিল করেন। পাল্টা এক শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ সমাবেশও অনুষ্ঠিত হচ্ছিলো একই সময়ে। সেই সমাবেশেই হঠাৎ করে চলন্ত গাড়ি দিয়ে হামলা হয়।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এবং বার্তা সংস্থা রয়টার্স ‘শেতাঙ্গ বর্ণবাদী ও বর্ণবাদ বিরোধীদের সংঘর্ষ’ শিরোনামে এ সংক্রান্ত খবর প্রচার করেছে। বিবিসি ও রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, মশাল হাতে শত শত শ্বেতাঙ্গ মিছিলে শ্লোগান দেন ‘ইহুদীরা আমাদের জায়গা নিতে পারবে না’ এবং ‘শ্বেতাঙ্গদের জীবনের মূল্য আছে।’ এই মিছিলের সময় বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ হয়। সেখানেই ভীড়ের মধ্যে গাড়ি তুলে দেওয়া হয়।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৩-আগস্ট২০১৭ইং/নোমান

Comments are closed.