কুলিয়ারচরে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালিত

মুহাম্মদ কাইসার হামিদ, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি :

সারাদেশের ন্যায় কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে ১৫ আগষ্ট স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগম্ভীর পরিবেশে উদযাপন করা হয়েছে।

এ দিবসটি পালন উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন,উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের পক্ষ থেকে দিনব্যাপি বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করেন।

সূর্যদয়ের সাথে সাথে উপজেলার সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়, বেসরকারি ভবন সমূহ ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত ভাবে উত্তোলন করা হয় ন্যান্য সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

সকাল সাড়ে ৮ ঘটিকায় সময় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) শাহ্ নূসরাত জাহানের নেতৃত্বে ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের পক্ষ থেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইমতিয়াজ বিন মুছা জিসানের নেতৃত্বে পৃথক ভাবে ২টি শোক র‌্যালি বের করে শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা প্রদক্ষিন শেষে শহীদ সেলিম সৃতি সংসদ প্রাঙ্গন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করা হয়।

সকাল ৯টার দিকে উপজেলা পরিষদ হল রুমে চিত্রাংকন,হাম,নাত,ও ক্বেরাত প্রতিযোগিতা অনুষ্টিত হয়। পরে এক আলোচনা সভায় উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) শাহ্ নূসরাত জাহানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র ইমতিয়াজ বিন মুছা জিসান।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,জেলা পরিষদের সদস্য ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোঃ জিল্লুর রহমান,উপজেলা আওয়ামী লীগের সধারন সম্পাদক মুর্শিদ উদ্দিন আহম্মেদ,উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ আব্দুল আজীজ, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ আলতাফ হোসেন সহ সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ।

বাদ যোহর উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমান সহ তাঁর পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয় এবং বিভিন্ন মন্দির ও অন্যান্য ধর্মীয় উপসনালয়ে বিশেষ প্রার্থনা করা হয়।

এছাড়া উপজেলার গোবরিয়া আব্দুল্লাপুর, রামদী, উসমানপুর, ছয়সূতী,সালূয়া ও ফরিদপুর ইউনিয় পরিষদ ও আওয়ামী লীগের উদ্দোগে পৃথক পৃথক কর্মসূচী পালন করা হয়।

এর মধ্যে আলোচনা সভা,রচনা আবৃত্তি ও কাংগালী ভোজের আয়োজন করেন। এবং সরকারি, আধা-সরকারি ও স্বায়ত্বশাসিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আলোচনা সভা চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা , পুরষ্কার বিতরণ ও কাংগালী ভোজের আয়োজন করা হয়।

 

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৫-আগস্ট২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ