চীনে ফেসবুক প্রবেশ!

তথ্য প্রযুক্তি রিপোর্ট :

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক সারা বিশ্বে জনপ্রিয় হলেও এশিয়ার সবচেয়ে বড় বাজার চীনে প্রবেশ করতে পারছিল না। তবে দেশটির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিভিন্ন আলাপ-আলোচনা এবং বৈঠকের পর এবার ফেসবুক কিছু কার্যক্রম শুরু করতে সক্ষম হয়েছে। চীনে সম্প্রতি ‘কালারফুল বেলুন’স নামের একটি অ্যাপ চালু করেছে ফেসবুক। এরপর ধীরে ধীরে মূল কার্যক্রম শুরু করবে বলেও শোনা যাচ্ছে।

নতুন এই অ্যাপটি অনেকটা ফেসবুক মোমেন্টস অ্যাপের মতো। ব্যবহারকারীরা এটা দিয়ে বন্ধুদের সঙ্গে ছবি শেয়ার করতে পারবেন। কালারফুল বেলুন’স মূলত ফেসবুকের মালিকানাধীন হলেও কাজ করবে চীনের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম উইচ্যাটের সঙ্গে। নিউইয়র্ক টাইমস তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, নতুন এই অ্যাপ চালু হয় গত মে মাসে। তবে বেশ গোপনে এটা চালু হওয়ায় অনেকেই বিষয়টি জানে না। চীনের ইয়ুজ ইন্টারনেট টেকনোলজি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে অ্যাপটির কার্যক্রম শুরু করে ফেসবুক।

চীনে নিজেদের কার্যক্রম সম্পর্কে ফেসবুকের এক কর্মকর্তা এএফপিকে জানায়, আমরা দীর্ঘদিন ধরে বলে আসছি, চীনের ব্যাপারে আমরা খুব আগ্রহী। দেশটিতে প্রবেশের লক্ষ্যে সব ধরনের উপায় বিবেচনা করা হয়েছে। দক্ষিণ এশিয়ার বড় বাজারটিতে কার্যক্রম শুরু করার জন্য তাদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে অনেক সময় ব্যয় করেছি আমরা।

এর আগে ২০০৯ সালে চীনে ফেসবুক নিষিদ্ধ করা হয়। পাশাপাশি নিষিদ্ধ হয় ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়াটসঅ্যাপও। এরপর থেকে দেশটিতে নিজেদের কার্যক্রম শুরু করতে বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নিয়ে আসছিলেন ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ। সূত্র: দ্য ভার্জ, গেজেটস নাউ

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৫-আগস্ট২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ