কিশোরগঞ্জের ভাসমান শাকসবজি আবাদের বেড পরিদর্শন করলেন এনএটিপি-২ প্রকল্পের উপপরিচালক ও এডিসি জেনারেল

আমিনুল হক সাদী, নিজস্ব প্রতিবেদক :

কিশোরগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় ভাসমান শাক সবজি আবাদের বেড পরিদর্শন করেছেন এনএটিপি-২ প্রকল্পের উপপরিচালক আফিয়া আক্তার ও এডিসি জেনারেল (সার্বিক) উপ-সচিব তরফদার মো.আক্তার জামীলসহ কৃষি বিভাগের একটি প্রতিনিধিদল।

মঙ্গলবার সকালে কিশোরগঞ্জ জেলা সদরের মহিনন্দ ইউনিয়নের চংশোলাকিয়া ব্লকের কাশোরারচর বিলে অবস্থিত ভাসমান শাকসবজি আবাদের বিভিন্ন বেড পরিদর্শন করেন তারা।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা কৃষি অফিসার দিলরুবা ইয়াসমিন, কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার মো. হুমায়ুন, স্থানীয় উপসহকারী কৃষি অফিসার আলা উদ্দিন,ইশিতাসহ স্থানীয় গণ্যমান্য লোকজন।

স্থানীয় কৃষক নুরুল ইসলা, ও ফয়েজ উদ্দিন জানান, সারা বছর আবদ্ধ পানিতে কচুরীপনা দিয়ে বেড তৈরি করে বিভিন্ন জাতের শাক সবজি আবাদ করে আমরা লাভবান হয়েছি। সেই সাথে পরিবারের ভরনপোষনও চালিয়ে যেতে পারছি। সম্পুণূ রাসায়নিকমুক্ত জৈব সারের চাহিদাও মিটছে। এবার ভাসমান আমান বীজতলাও তৈরী করে চারা রোপন করেছি জমিতে। প্রতিনিধিদলের সদস্যরা চরশোলাকিয়া ও কাশোরারচরের বিলে ভাসমান শাক সবজি ও আমন বীজতলার আবাদ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। এর আগে এনএটিপি-২ প্রকল্পের উপপরিচালক আফিয়া আক্তার যশোদলে ভাসমান শাকসবজি আবাদ পরিদর্শন করেন।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/২২-আগস্ট২০১৭ইং/নোমান

Comments are closed.