ঢাকা-সিলেট-ভৈরব মহাসড়কে যানজট

সজীব আহমেদ, ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) থেকে।।  ঈদকে সামনে রেখে ঢাকা-সিলেট-ভৈরব দূজর্য় মোড় মহাসড়কে যানজট লেগেই আছে। দু’একদিনের মধ্যে আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা করছেন এই রুটে চলাচলকারী যাত্রী এবং পরিবহন চালকরা। এবার বৃষ্টি মৌসুমে ঈদ হওয়ায় সংশ্লিষ্টদের মধ্যে যানজট নিয়ে এই শঙ্কা।

মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে এখনাও খানা-খন্দক রয়েছে। মহাসড়কের ভৈরবের বিভিন্ন স্থানে সংস্কার কাজ করতে দেখা যায়। সবচেয়ে বেহাল অবস্থা দেখা যায় ময়মনসিংহ রোড থেকে ভৈরব দূজর্য় মোড় পর্যন্ত দশ কিলোমিটার সড়কের বিভিন্ন স্থানে। এসব এলাকায় সংস্কারের কাজ করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ।

বেশ কয়েকজন গাড়ি চালকের সাথে আলাপকালে তার জানান, ঈদকে সামনে রেখে গরুবাহী ট্রাকসহ যানবাহন চলাচল বেড়ে গেছে। আর এর মধ্যে সংস্কার কাজের কারণে যানজট হচ্ছে।

সরেজমিন পরিদর্শনকালে ভৈরব বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ভৈরব থেকে ময়মনসিংহ বাসের চালক আবদুল আজিজ জানান, মহাসড়ক সংস্কারের কারণে এখন যানজটে পড়তে হচ্ছে। আগামী দুই-একদিনের মধ্যে ঈদের কারণে যানবাহনের চাপ বেড়ে যাবে। তখন আরও যানজট দেখা দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ঈদের সময় এ দুর্ভোগ আরও বেড়ে যাবে বলে তিনি মনে করেন।

ভৈরব থেকে সিলেট বাসযাত্রী আবদুল কাদের জানান, এখনই যানজটের যে অবস্থা, যথাযথ ব্যবস্থা না নিলে ঈদের আগে ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হবে এ সড়কের যাত্রীদের।

বাদশা কাউর্টারে একযাত্রী মশিউর রহমান জানান, আরও আগেই এই মহাসড়কের মেরামতের কাজ শুরু করা উচিত ছিল।

ভৈরব হাইওয়ের থানার ওসি মিজানুর রহমান মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠকে জানান, বৃষ্টি ও পশুবোঝাই যানবাহনের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ যানবাহনের চলাচল স্বাভাবিক রাখতে চেষ্টা করে যাচ্ছে।

মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা- সিলেট মহাসড়কের ভৈরবের বিভিন্ন স্থানে সকাল থেকেই যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

এছাড়া মহাসড়কে এলোমেলো যানবাহন চলাচল, সড়কে অবৈধ অটোরিকশা, এলোমেলো পার্কিং ও অতিরিক্ত যানবাহনের চাপের কারণেও যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এ যানজট কখনো থেমে থেমে কখনো আবার তীব্র আকার ধারণ করছে।

হাইওয়ে পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরবের বিভিন্ন অংশ ভাঙ্গাচুরা থাকায় যানবাহন চলাচলের গতি পাচ্ছে না। আবার এ মহাসড়কে যানজট সৃষ্টির কারণ যানবাহনের অদক্ষ চালক। একটু যানজটে পড়লেই আগে যাওয়ার জন্য চালকরা লাইন ছেড়ে অন্য লাইনে যাওয়ার চেষ্টা করে। যার কারণে এই সড়কে যানবাহনের চাপ থাকে ব্যাপক। ঈদের আগে যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পায় কয়েকগুণ।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/০১-সেপ্টেম্বর২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ