টানা দুই সপ্তাহ মূল্যসূচকের বড় উত্থান

অর্থনৈতিক রিপোর্ট : পবিত্র ঈদুল আজহার আগে দেশের শেয়ারবাজারে দেখা দেয়া চাঙা প্রবণতা, ঈদের পরেও তা অব্যাহত রয়েছে। ঈদের ছুটি শেষে লেনদেন হওয়া চার কার্যদিবসের মধ্যে তিন দিনই বেড়েছে মূল্যসূচক। ফলে সপ্তাহজুড়ে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স’র বড় উত্থান হয়েছে। এ সূচকটি বেড়েছে প্রায় দুই শতাংশ। এ নিয়ে টানা দুই সপ্তাহ মূল্যসূচকের বড় উত্থান ঘটল।

শেষ সপ্তাহে মূল্যসূচকের পাশাপাশি বেড়েছে দৈনিক গড় লেনদেনের পরিমাণও। সপ্তাহের চার কার্যদিবসের (৪-৭ সেপ্টেম্বর) প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৫৭ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৯০৮ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন বেড়েছে ১৪৮ কোটি ৭৫ লাখ টাকা বা ১৬ দশমিক ৩৬ শতাংশ।

দৈনিক গড় লেনদেন বাড়লেও গত সপ্তাহে এক কার্যদিবস কম লেনদেন হওয়ায় ডিএসইতে মোট লেনদেন কিছুটা কমেছে। রোববার ঈদুল আজহার বন্ধ থাকায় লেনদেন হয়নি। শেষ সপ্তাহরে চার কার্যদিবসে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ৪ হাজার ২৩০ কোটি ৯৮ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয় ৪ হাজার ৫৪৪ কোটি ৯৭ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ৩১৩ কোটি ৯৯ লাখ টাকা বা ৬ দশমিক ৯১ শতাংশ।

গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৮৭ দশমিক ৭১ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এছাড়া বাকি ৫ দশমিক ৮৯ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ১ দশমিক ৬২ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের।

শেষ সপ্তাহে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ১০৮ দশমিক ৫৫ পয়েন্ট বা ১ দশমকি ৮১ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ১২১ দশমিক শূন্য ১ পয়েন্ট বা ২ দশমকি শূন্য ৬ শতাংশ।

অপর দুটি সূচকের মধ্যে শেষ সপ্তাহে ডিএসই-৩০ সূচক ৩৯ দশমিক ৭৮ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৮৬ শতাংশ বেড়েছে। আর ডিএসই শরিহ্ সূচক বেড়েছে ২৫ দশমিক ৭৭ পয়েন্ট বা ১ দশমকি ৯৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছিল ২৭ দশমিক ৩৮ পয়েন্ট বা ১ দশমকি ৩০ শতাংশ এবং ডিএসই শরিহ্ সূচক বেড়েছিল ১৬ দশমিক ৪৮ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ২৬ শতাংশ।

এদিকে গত সপ্তাহে মূল্যসূচক ও লেনদেন বাড়ার পাশাপাশি ডিএসইর বাজার মূলধনের পরিমাণও বেড়েছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ৭ হাজার ৭৬৪ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৪ লাখ ২ হাজার ৯০ কোটি টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ৫ হাজার ৬৭৪ কোটি টাকা।

শেষ সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৩৪টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ১৭৮টির দাম বেড়েছে। অন্যদিকে দাম কমেছে ১৩৬টির। আর অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টির দাম।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে লংকাবাংলা ফাইন্যান্সের শেয়ার। কোম্পানিটির ১৬৯ কোটি ৬৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৪ দশমিক শূন্য ১ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ন্যাশনাল ব্যাংকের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১১৮ কোটি ৫১ লাখ টাকা, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ২ দশমিক ৮০ শতাংশ। ১১২ কোটি ৬৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ফরচুন সুজ।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- আইএফআইসি ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক, বিবিএস কেবলস, সি অ্যান্ড এ টেক্সটাইল এবং স্কয়ার ফার্মা।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/০৯-সেপ্টেম্বর২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ