তৌফা-তহুরাকে ফুল-পোশাক দিয়ে শুভেচ্ছা জানালেন জেলাপ্রশাসক

মোঃ মেহেদী হাসান, গাইবান্ধা : গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক (ডিসি) গৌতম চন্দ্র পাল জোড়া লাগানো তৌফা-তহুরাকে ফুল-পোশাক দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।
সোমবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকেল পৌনে ৪টার দিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীবন ইউনিয়নের কাশদহ গ্রামে নানার বাড়িতে গিয়ে তাদের শুভেচ্ছা জানান তিনি। পরে তিনি তাদের দুই বোনকে দু’টি পোশাক উপহার দেন। এসময় ডিসি তৌফা-তহুরাকে কোলে নিয়ে দোয়া করেন।
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, সুন্দরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এসএম গোলাম কিবরিয়া, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিয়ার রহমান, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা গোলাম আজমসহ বেশ কয়েকজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা।
জেলাবাসীর পক্ষ থেকে তৌফা-তহুরার চিকিৎসকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ডিসি বলেন, তৌফা-তহুরার জন্য দেশবাসী দোয়া করবেন।
এসময় শিশু দু’টির সুন্দরভাবে বেড়ে ওঠাসহ তাদের পারিবারিক বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন ডিসি।
২০১৬ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর নানার বাড়িতে জোড়া লাগানো অবস্থায় জন্ম নেয় তৌফা ও তহুরা। এরপর আটদিন বয়সে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। চলতি বছরের ১ আগস্ট অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে তাদের আলাদা করা হয়।
রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে শিশু দু’টিকে কোলে নিয়ে তাদের বাবা রাজু মিয়ার হাতে হাসপাতালের ছাড়পত্র দেন। এসময় রাজুর হাতে নগদ ৫০ হাজার টাকা তুলে দেন মন্ত্রী। ওই দিনগত রাত আড়াইটার দিকে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার রামজীবন ইউনিয়নের কাশদহ গ্রামে নানার বাড়িতে পৌঁছায় তৌফা-তহুরা।
এদিকে, তৌফা-তহুরার আরও দু’টি অস্ত্রোপচার বাকি আছে। এছাড়া প্রতি মাসে শিশু দু’টিকে ফলোআপ চিকিৎসা করাতে ঢাকায় নিতে হবে।

 

 

 

Comments are closed.