নিকলীতে ইউএনও’র পদ শূন্য : প্রশাসনিক কার্যক্রম স্থবির

মোহাম্মদ আরিফুল ইসলাম, কিশোরগঞ্জ।। কিশোরগঞ্জের নিকলী উপজেলায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) পদ শূন্য রয়েছে। দীর্ঘদিন যাবত জনগুরুত্বপূর্ণ পদটি পূর্ণাঙ্গ না থাকায় প্রশাসনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা বিরাজ করছে। তাই স্থবিরতা নিরসনে পূর্ণাঙ্গ পদে একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পদায়ন জরুরী বলে মনে করছেন স্থানীয় জনগণ ও সংশ্লিষ্টরা।

তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায়, ২০১৬ সালের ২১ সেপ্টেম্বর নিকলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুব আলম অন্যত্র বদলি হলে পার্শ্ববর্তী বাজিতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এজেডএম শারজিল হাসানকে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়। পরে ২ মাস ২৪ দিন পর ১৫ ডিসেম্বর মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন মাহমুদ উপজেলার নতুন ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন। ৭ মাস ৩ দিন দায়িত্ব পালন শেষে গত ১৮ জুলাই তিনি অন্যত্র বদলি হলে আবারও বাজিতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ভাস্কর দেবনাথ বাপ্পি অতিরিক্ত দায়িত্ব গ্রহণ করেন। চলতি মাসের ৪ সেপ্টেম্বর তিনি অন্যত্র বদলি হলে পদটি সম্পূর্ণ শূন্য হয়ে যায়।

উপজেলায় শীর্ষ এ কর্মকর্তা না থাকায় কোন সমস্যা হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে স্থানীয় জনগণ ও সংশ্লিষ্টরা জানান, যেকোন উপজেলায় এ গুরুত্বপূর্ণ পদটি গুরুত্ববহন করায় একজন ইউএনও’র পক্ষে অতিরিক্ত দায়িত্ব নিয়ে দুই উপজেলায় সময় দেয়া সম্ভব নয়। অনেক সময় প্রয়োজনীয় কাজে ইউএনও’র দেখা না মিললে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে বাজিতপুরে গিয়ে দেখা করতে হয় বলেও তারা উল্লেখ করেন।

এদিকে সদ্য যোগদানকৃত বাজিতপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহানা নাসরিন নিকলীর অতিরিক্ত দায়িত্ব নিচ্ছেন কিনা জানতে চাইলে এমন কোন চিঠিপত্র তিনি পাননি বলে জানান। তাই আপাতত কিছু বলতে পারছেন না বলে উল্লেখ করেন।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১২-০৯-২০১৭ইং/ অর্থ

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ