ভাতিজার হাতে চাচা খুন

ক্রাইম রিপোর্ট : পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলার ইকরি ইউনিয়নের পশ্চিম পশারিবুনিয়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ভাতিজার হাতে চাচা নিহত হয়েছেন। নিহতের নাম মাওলানা নাসির উদ্দিন (৬০)। তিনি স্কুল শিক্ষক ছিলেন। ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

ভাণ্ডারিয়া উপজেলার ৪ নম্বর ইকরি ইউনিয়নের ২নং পশ্চিম পশারিবুনিয়া ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. রফিকুল ইসলাম জানান, মাদার্শী গ্রামের মৃত আব্দুল গনি হাওলাদারের ছেলে মাওলানা নাসির উদ্দিনের সঙ্গে তার চাচাতো ভাইয়ের ছেলে আব্দুস ছালাম হাওলাদারের (৫০)বাড়ির ২০ ফুট দৈর্ঘ্য ও দেড় ফুট প্রস্থের এক খণ্ড জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। বিষয়টি নিয়ে একাধিক বার সালিশ বৈঠকও হয়েছে। জমি নিয়ে এ বিরোধের জের ধরে আব্দুস ছালাম তার ছেলে রমিজ ও তার সহযোগীরা রবিবার সকালে  মাওলানা নাসির উদ্দিনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানেও অবস্থার অবনতি হলে রাতে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সোমবার সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম আরও জানান, আব্দুস ছালাম তার চাচা মাওলানা নাসির উদ্দিনকে মামলায় ফাঁসাতে ৫ বছর আগে নিজের মেয়ে সোনিয়া আক্তারের বাম হাত কেটে ফেলে।

ভাণ্ডারিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুজ্জামান তালুকদার জানান, মাওলানা নাসির উদ্দিন ভাণ্ডারিয়া উপজেলার হেতালিয়া নেছার উদ্দিন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক ছিলেন। নাসির উদ্দিনের ওপর হামলার ঘটনায় তার ছেলে শাহিন হাওলাদার বাদী হয়ে ১০ সেপ্টেম্বর ১৩ জনকে আসামি করে ভাণ্ডারিয়া থানায় একটি হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করেছেন। এখন এ মামলাটি হত্যা মামলায় রুপান্তর হবে। এরইমধ্যে হামলাকারী আব্দুস ছালাম, তার ছেলে রমিজ উদ্দিন ও ভাগ্নে মিজানুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১২-সেপ্টেম্বর২০১৭ইং/নোমান

Comments are closed.