কুলিয়ারচরে কমিউনিটি পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত

মুহাম্মদ কাইসার হামিদ, ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি : “পুলিশ জনতা ভাই ভাই,ডিজিটাল সোনার বাংলা গড়তে চাই” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরে কমিউনিটি পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

১২ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকেলে কুলিয়ারচর থানা হল রুমে থানা কর্তৃক আয়োজিত কমিউনিটি পুলিশিং আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, কিশোরগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোঃ রাকিব খান।এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভৈরব সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ কামরুল ইসলাম, কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনর্চাজ মোঃ মকবুল হোসেন মোল্লা, কুলিয়ারচর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মোঃ সামসুল হক হারিছ (মাষ্টার), কুলিয়ারচর উপজেলা পূজা উদ্ধসঢ়;যাপন কমিটির সভাপতি নিশিকান্ত দাস, কুলিয়ারচর পৌরসভার প্যানেল মেয়র- ১ মোঃ অলি উল্লা,কুলিয়ারচর থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই এনামুল হক, সালূয়া ইউনিয়ন পরিষদের শাহ্ মোঃ মাহাবুবুর রহমান,গোবরিয়া আব্দুল্লাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ এনামুল হক আবু বক্কর,সাধারন সম্পাদক মোঃ নাজিরুল আলম, কুলিয়ারচর উপজেলা পূজা উদ্ধযাপন কমিটির সদস্য এড.কেশব দাস প্রমূখ।

এসময় প্রধান অতিথি কিশোরগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোঃ রাকিব খান “মাজুজ” অর্থাৎ মাদক, জুয়া ও জঙ্গি নির্মূলে এলাকবাসীর সহযোগীতা কামনা করে বলেন, মাদক,জুয়া ও জঙ্গি তৎপরতা দেখার সাথে সাথে পুলিশকে জানাবেন। যদি কোন পুলিশ সদস্য মাজুজ এর সাথে জড়িত থাকে তাহলে যেনে নিবেন এরা কেউ পুলিশের সদস্য না। এমন তথ্য পাওয়া গেলে তাৎক্ষনিক ওই পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সচেতনতার লক্ষে উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে কমিউনিটি পুলিশিং ও আইন শৃংঙ্খলা মিটিং করে জনসচেতনতার আহবান জানান ।

তিনি উপজেলার প্রতিটি স্কুল,কলেজ,মাদরাসায় গিয়ে শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের সাথে আইন শৃংঙ্খলার বিষয়ে আলোচনা করার আশ্বাসদেন এবং স্কুল,কলেজ,মাদরাসা ও মসজিদের গেইটে কিংবা দেওয়ালে পুলিশ অফিসারদের মোবাইল নাম্বার বড় অক্ষরে লিখে দেওয়ার ব্যবস্থা করবেন যাতে কোন সমস্যায় এলাকাবাসীসহ স্কুল,কলেজ ও মাদরাসা পড়–য়া শিক্ষার্থীরা পুলিশের সহযোগীতা নিতে পারে। আসন্ন দূর্গা পূজা যাহাতে ভালভাবে পালন করতে পারে এ জন্য তিনি সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১৩-সেপ্টেম্বর২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ