শিউলি-কাঁশে পূজার বার্তা : শেষ মূহুর্তে ব্যস্ত সময় পার করছে প্রতিমা শিল্পীরা

মন্তোষ চক্রবর্তী, অষ্টগ্রাম (কিশোরগঞ্জ) ।। আর মাত্র কয়েকদিন পরেই শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বিদের সর্ব বৃহৎ শারদীয় দূর্গোৎসব। এই জন্য নাওয়া খাওয়া ভুলে দিন-রাত প্রতিমা শিল্পীরা।

হাওড় বেষ্টিত কিশোরগঞ্জ জেলার অষ্টগ্রাম উপজেলায় এ বছর ৫৩টি পূজা মন্ডবে পূজা হবে বলে জানা গেছে। বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় দিবারাত্রি প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে প্রতিমা শিল্পীরা। কোথাও প্রতিমার তৈরি শেষ করে চলছে রং তুলির কাজ। এইসব প্রতিমা তৈরিতে ৫হাজার থেকে ২০হাজার পর্যন্ত প্রতিমা তৈরিতে ব্যয় হচ্ছে।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি ও অষ্টগ্রাম সরকারী পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেবেশ চন্দ্র দাস জানান, এ উপজেলার মোট ৫৩টি পূজা হবে।

উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ কুমার দেবনাথ জানান এই উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে ৫৩টি পূজা উদযাপিত হবে। এইসব ইউনিয়ন গুলোর মধ্যে দেওঘর ১টি, কাস্তুল ২টি, সদর ৬টি, বাঙ্গালপাড়া ৯টি, কলমা ১৯টি, আদমপুর ৮টি, খয়েরপুর আব্দুল্লাপুর ২টি এবং পূর্ব অষ্টগ্রামে ৬টি মন্ডবে প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এ ব্যাপারে অষ্টগ্রাম থানা অফিসার ইনচার্জ কামরুল ইসলাম মোল্লা জানান, নিরাপত্তার কোন ঘাটতি হবে না। প্রতিটি মন্ডবে পূজা মন্ডবে আইন শৃঙ্খলার রক্ষাকারী বাহিনী দেওয়া হবে এবং গুরুত্বপূর্ন মন্ডব গুলোতে বিশেষ নজরদারি রাখা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম জানান, ইতিমধ্যে সকলকে নিয়ে পূজার প্রস্তুতি মূলক সভা হয়েছে পূজা চলাকালীন সময়ে প্রতিটি পূজা মন্ডবে শান্তি এবং শৃঙ্খলার জন্য কঠোর নিরাপত্তা দেওয়া হবে। তিনি আরও জানান ইতিমধ্যে প্রতিটি পূজা মন্ডবের জন্য (জি আর) এর ৫০০ কেজি করে চাল বরাদ্দ হয়েছে।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/২০-০৯-২০১৭ইং/ অর্থ

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ