মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ডটকমের কাতার প্রতিনিধি দ্বীন ইসলামের ইমু আইডি হ্যাকিংয়ের শিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক ।। গত ১৬/০৯/১৭ ইং তারিখে মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ডটকমের কাতার প্রতিনিধি দ্বীন ইসলামের ইমু আইডিটি হ্যাকিংয়ের শিকার হয়, হ্যাকিংয়ের পর থেকেই তার ইমু মেসেঞ্জারে আজে বাজে মেসেজ আসতে শুরু করে, আবার তার ইমু থেকে বাজে ছবি সহ বাজে বাজে সব সেক্সজুয়্যাল ছবি ও মেসেজ যাচ্ছে তার পরিচিত শুভাকাঙ্কিদের কাছে, তখন তাৎক্ষণিক ব্যপারটি বুজতে না পারায় চরম ভূগান্তিতে পড়েন তিনি।
যাদের কাছে তার ইমু থেকে আজে বাজে ছবি ভিডিও ক্লীপ ও বাজে মেসেজ গিয়েছে কোনটিই সে করেনি বলে দাবি করেন। তবে আজ সকাল ১০ টার দিকে সে বিষয় টি বুঝে উটতে পেরে ফেজবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন, স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলোঃ-
জরুরী পোষ্ট
বন্ধুরা!! গত কয়েক দিন ধরে আমার ইমু আইডিতে অনেকেই উল্টাপল্টা মেসেজ করছে, কেউবা ফোন করে গালাগালি করতেছে, প্রথমে যদিও ব্যপারটা বুজতে পারিনি, আজ স্পস্ট বুঝে গেছি, কেননা অটোমেটিক তো লিখা ছবি যাওয়ার প্রশ্নই উঠেনা। হয়তো কেউ আমার ইমু টি হ্যাক করে ব্যবহার করছে। সে জন্য আমার সকল বন্ধুদের কাছে অনুরোধ কাউকে যদি আমার ইমু, হোয়াট্সএপ থেকে আপত্তিকর কিছু বলে আমাক ভূল না বুঝে আমার নাম্বারে কল দিয়ে অবহিত করুন, আর বাংলাদেশের বন্ধুরা মিস্ কল দিলেই ব্যাক করবো।
অনেকেই দেখছি আমাকে ইমু, ফেজবুকে ব্লক করে দিয়েছে, এবং ইমুতে যেই ব্যক্তি মেসেজ করছে সব আমার কাছে আসে আমিতো দেখে অবাক আমি কিছু লিখিনা অথচ আমার আইডি থেকে লিখা কিভাবে যায়।
গত চারদিন ধরে কয়েকটা ইমুতে বাজে বাজে পিক পাটাচ্ছে আবার বাজে বাজে মেসেজ করছে অনেকে আমই ভেবে মাথা ঠিক আছে কিনা বলে তখনখন আমার খারাপ পিক পাঠায় তার পর আমাকে অনেকেইই অনেক গালাগালি করে। আমি কাউকে বুঝাতে পারছিনা সে ব্যক্তি আমি নই, আমি আজকে পর্যন্ত অপেক্ষা করে ফেইজবুকে স্ট্যাটাস দিলাম। এখন বাচাঁর উপায় একটায় আমার ইমুটি বন্ধ করে নতুন ইমু খুলতেছি তাই আমার পরিচিতদের কাছে আমার নতুন নাম্বার sms করে দিয়ে দিব।
তিনি সকল ইমু ব্যবহার কারীদের কে সচেতন থাকার আহবান জানান এবং যাদের কাছে এসব মেসেজ ও ছবি গিয়েছে তাদের কাছে তিনি আন্তরিক ভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছেন সেই সাথে তার ইমু একাউন্ট টি বন্ধ করে দিয়ে নতুন একাউন্ট খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

 

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/২১-০৯-২০১৭ইং/ অর্থ  

Comments are closed.