বগুড়ায় তুফান বাহিনীর ৫ সদস্যের জামিন নামঞ্জুর

বগুড়া, জেলা প্রতিবেদক : বগুড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণের পর মা-মেয়েকে মাথা ন্যাড়া করে নির্যাতনের ঘটনার মূলহোতা তুফান সরকারের স্ত্রী, শ্যালিকা, শাশুড়িসহ ৫ জনকে আদালতে হাজির করে জামিন আবেদন করা হয়। বুধবার বগুড়া অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শ্যাম সুন্দর রায়ের আদালতে হাজির করে তাদের জামিন চাওয়া হলে বিচারক নামঞ্জুর করে তাদের জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী স্পেশাল পিপি এড আমান উল্লাহ জানান, ছাত্রীকে ধর্ষণের পর মা-মেয়েকে মাথা ন্যাড়া করে নির্যাতনের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার তুফান সরকারের স্ত্রী আশা বেগম, শ্যালিকা কাউন্সিলর মারজিয়া হাসান রুমকি, শাশুড়ি এবং সহযোগী আতিক ও মুন্নাকে আদালতে হাজির করে জামিন আবেদন করা হয়েছিল। আদালত শুনানি শেষে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। মামলার পরবর্তী ধার্য তারিখ ২৩ অক্টোবর।

উল্লেখ্য, বগুড়ায় ছাত্রীকে ধর্ষণ ও তার মাকে নির্যাতনের ঘটনায় আলোচিত তুফান-রুমকি পরিবার। মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে ওই ছাত্রীর সঙ্গে শ্রমিক লীগ নেতা তুফানের পরিচয় হয়। এসএসসিতে পাশ করলেও জিপিএ-৫ না পাওয়ায় ভালো কলেজে ভর্তি হতে পারছিলেন না ওই ছাত্রী। বিষয়টি জানার পর তুফানের বড়ভাই মতিন তাকে ভালো কলেজে ভর্তি করে দেওয়ার ব্যবস্থা করবে বলে জানায়। এরপর গত ১৭ জুলাই সকালে তুফান তাকে ফোন করে এবং কলেজে ভর্তি সংক্রান্ত কাগজপত্রে স্বাক্ষরের জন্য শহরের চক সূত্রাপুরে তার বাড়িতে ডেকে পাঠিয়ে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণের ঘটনা ধামাচাপা দিতে ধর্ষিতা ও তার মাকে ২৮ জুলাই ডেকে এনে মাথা ন্যাড়া করে দেয় তুফান সরকারের স্ত্রী, শ্যালিকা কাউন্সিলর রুমকিসহ অন্যান্য সহযোগীরা।

এ ঘটনা প্রকাশের পর মূল নায়ক শ্রমিক লীগ নেতা তুফান সরকারসহ ৪ সহযোগীকে প্রথম দিনে গ্রেফতার করে তিনজনকে তিনদিনের রিমান্ডে দেন আদালত। এর পরেরদিন কাউন্সিলর মারজিয়া হাসান রুমকিকে চারদিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। এছাড়াও তুফানের স্ত্রী আশা, তুফানের শাশুড়ি রুমি, তুফানের শ্বশুর জামিলুর রহমান, সহযোগী জিতু, মুন্না ও নরসুন্দর জীবন রবিদাসকে দুইদিন করে রিমান্ড দেওয়া হয়।

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/২৮সেপ্টেম্বর২০১৭ইং/নোমান

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ