কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় ব্র্যাক-এর ভূমিবন্ধু অফিস উদ্বোধন

মোঃ আশরাফ আলী, স্টাফ রিপোর্টার ।। আজ ০৭ অক্টোবর, ২০১৭ খ্রি. শনিবার সকাল ১০ ঘটিকা থেকে ২টা পর্যন্ত কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় ব্র্যাক-এর ভূমিবন্ধু অফিস উদ্বোধন করা হয়। এ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় ১৫টি ভূমি সংক্রান্ত বিশেষ সেবা সম্পর্কে অবহিত করা হয়।

দেশের ভূমি ব্যবস্থাপনাকে প্রযুক্তিনির্ভর ও আধুনিকায়নের জন্য সরকার নানা উদ্যোগ নিলেও বাস্তবে তার সুফল মিলছে না। বিশেষতঃ জনগণের অজ্ঞতা, ভূমিসেবা পদ্ধতির দীর্ঘসূত্রিতা ও জটিলতার কারণে প্রত্যাশিত সেবা থেকে বি ত সাধারণ মানুষ। এছাড়া ভূমি আইন যথাযথভাবে বাস্তবায়ন না হওয়া, তথ্যের অপর্যাপ্ততা, সঠিকভাবে ভূমিজরিপ ও রেকর্ড তৈরি না হওয়া এক্ষেত্রে জাতীয় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আজ শনিবার (৭ই অক্টোবর, ২০১৭) কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত ব্র্যাকের ভূমিসেবা ও পরামর্শ কেন্দ্রের (ভূমিবন্ধু) উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচি এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে এ বিষয়ক উপস্থাপনা তুলে ধরেন ব্র্যাকের ভূমিবন্ধু কনসালট্যান্ট মো. আব্দুল মান্নান, সাবেক অতিরিক্ত সচিব ও ভূমি জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক।

ব্র্যাকের মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কর্মসূচির সহযোগী পরিচালক, সাজেদা ফারিসা কবিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পাকুন্দিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার অন্নপূর্ণা দেবনাথ, পৌর মেয়র মো.আক্তারুজ্জামান খোকন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মানবাধিকার ও আইন সহায়তা কেন্দ্রের প্রোগ্রাম ম্যানেজার মজিবুর রহমান।

সাজেদা ফারিসা কবির বলেন, ‘ভূমিবন্ধু আপনার এলাকায় ন্যূনতম ফী-এর বিনিময়ে স্বচ্ছতার সাথে সেবা দিবে। যদি এ বিষয়ে আমাদের সেবা কিষয়ে কারও কোন অভিযোগ থাকে তাহলে যে কেউ আমাদের প্রধান কার্যালয়ে অভিযোগ করতে পারবে।’

পাকুন্দিয়া পৌরসভার মেয়র জনাব আক্তারুজ্জামান খোকন বলেন, ‘সবকিছুই ভালভাবে শুরু হয়। এর প্রকৃত মূল্যায়ন হবে যখন এর কার্যক্রম শুরু করবে। এছাড়া আমাদের দেশের ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালত কার্যক্রম ফলপ্রসু করতে ব্র্যাকের সহযোগিতা প্রশংসনীয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার অন্নপূর্ণা দেবনাথ বলেন, ‘জনগণকে ভূমিসেবা দেবার জন্য সরকারের ব্যাপক উদ্যোগ আছে। এর পাশাপাশি কোন প্রতিষ্ঠান যদি সরকারের অনুমতি নিয়ে সরকারের পাশাপাশি জনগণকে সেবা দেবার জন্য আরও একটি উদ্যোগ নেয় সেটা গ্রহণ করতে আপত্তি থাকার কথা না। তাদের সহায়তায় জনগণ যদি সরকারের কাছ থেকে সহজে সেবা নিতে পারে তাহলে আমরা এ উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। তবে এক্ষেত্রে প্রতিমাসে ব্র্যাক যদি উপজেলা প্রশাসনের সাথে যৌথ অবহিতকরণ সভা করে বা মাসিক সমন্বয় সভায় উপস্থিত থেকে ভূমিবন্ধুর কাজের প্রতিবেদন দেয় তাহলে তাদের কাজের স্বচ্ছতা নিশ্চিত হবে।’ জনগণ ভূমিবন্ধুর অফিস থেকে সহযোগিতা নিতে পারবে তাদের ইচ্ছে হলেই। আমাদের সেবা যথাযথভাবে দেয়া হচ্ছে। তবে ভূমিবন্ধু অফিসটি সহায়ক হবে বলে সরকার তাদের সহযোগিতার হাতকে স্বাগত জানিয়েছে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও গীতা পাঠের পর ভূমি অধিকার বিষয়ক এনিমেশন ভিডিও প্রদর্শন এবং সরকারের প্রদত্ত সেবা ও ভূমি ভূমিবন্ধুর সেবা বিষয়ক ‘ভূমির বন্ধু’ নামক নাটিকা মঞ্চস্থ্য হয়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশে প্রতি ৭টি পরিবারের মধ্যে ১টি পরিবার জমিসংক্রান্ত জটিলতায় নিপতিত। এক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি ব নার শিকার নারীরা। সম্পত্তিতে রাষ্ট্র ও ধর্ম নারীকে যে অধিকার দিয়েছে তাও সঠিকভাবে বাস্তবায়িত হচ্ছে না নারীর প্রতি পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গির সীমাবদ্ধতার কারণে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা জমির অধিকার রক্ষায় প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও সমস্যা সমাধানে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি কর্মকান্ড আরও জোরদার করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। এক্ষেত্রে ব্র্যাকের ‘ভূমিবন্ধু’ কার্যক্রম একটা বড় দৃষ্টান্ত হতে পারে বলে তারা অভিমত প্রকাশ করেন। প্রশ্নোত্তর পর্বে সাবেক অতিরিক্ত সচিব আঃ মান্নান ও ব্যারিস্টার সাজেদা ফারিসা কবির উপস্থিতিদের প্রশ্নোত্তর দেন এবং ভূমিবন্ধুর ১৫টি কাযক্রম বিষয়ে বিশেষ সহযোগিতার কৌশল তুলে ধরেন। উপস্থিত সকলের তাদের এই উদ্যোগে স্বাগত জানিয়েছে। তবে এই বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য সাংবাদিক ও জনপ্রতিনিধিগণ পরামর্শ দিয়েছেন।

 

 

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/০৭-১০-২০১৭ইং/ অর্থ

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ