বিদ্যানীড় এর প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ,
নভেম্বর ৮, ২০১৭ ৪:০৪ অপরাহ্ণ

আকিব  হৃদয়, স্টাফ রিপোর্টার ।। গতকাল ৭ই নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের স্কুল বিদ্যানীড় এর প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরের বিয়াম ল্যাবরেটরি স্কুল প্রাঙ্গনে এক  অনুষ্ঠানের  আয়োজন করে বিদ্যানীড় শিক্ষা পরিবার।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কিশোরগঞ্জ এর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও উপ-সচিব তরফদার মোঃ আক্তার জামীল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গুরুদয়াল সরকারি কলেজ এর বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর  মো: ইদ্রিস আলী, বাংলা বিভাগের  প্রভাষক  নুসরাত জাহান  উর্মি এবং জলছবি সাংস্কৃতিক সংঘের সভাপতি কবি বিপুল মেহেদী।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে  তরফদার মোঃ আক্তার জামীল বলেন, অপূর্ণতাই জীবন, পূর্ণতা হলো মৃত্যু।  পূর্ণতার মধ্যে আনন্দ নেই। মানুষ যদি সবকিছু পরিপূর্ণ ভাবে পেয়ে যায় তাহলে সেটা মৃত্যু ছাড়া কিছুই না। অপূর্ণতা মানুষকে সৃষ্টিশীল, কর্মমুখী করে তোলে। তিনি সমাজের সুবিধাবঞ্চিত অসহায় শিশুদের নিয়ে কয়েকজন শিক্ষার্থীর এ মানবিক প্রচেষ্ঠাকে স্বাগত জানান।  তিনি আরও বলেন সুবিধাবঞ্চিত এসব শিশুরা  বিদ্যানীড় থেকে শিখে মানুষের মত মানুষ হবে এটাই আমার প্রত্যাশা।

পরবর্তীতে অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়, কিশোরগঞ্জ  এর উপপিরচালক রবিউল ইসলাম প্রধান অতিথিকে ফোন দিলে তিনি তাকেও অনুষ্ঠানে ডেকে নেন। সেসময় উপপিরচালক, সমাজসেবা বলেন, তিনিও অনাথ, এতিম শিশুদের নিয়ে কাজ করছেন। কিন্তু তারটা সরকারি চাকুরির তাগিদে। কিন্তু বিদ্যানীড়ের যারা অসহায় শিশুদের পড়াচ্ছেন তারা নিজেদের পড়াশুনার পাশাপাশি নিজ দায়িত্ববোধে এ কাজ করছেন।

প্রতিষ্ঠানটি যার অক্লান্ত পরিশ্রমে এ জায়গায় পৌঁছেছে সেই মৌসুমী ‍রিতু শোনান হাটিহাটি পা পা করে  ১/২ জন শিশুদের পাঠদান দিয়ে শুরু করা বিদ্যানীড় আজ ১৫ জন শিক্ষকের মাধ্যমে কিভাবে তিনটি স্থানে ১২০ জন শিশুকে পাঠদান করছে সে কাহিনী। তিনি এজন্য যে সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান তাদেরকে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন তাদেরকে ধন্যবাদ জানান। সকল বাধা বিপত্তি দূর করে বিদ্যানীড় যাতে আগামীতে আরও সামনের দিকে এগিয়ে যেতে পারে, হাসি ফোটাতে পারে সুবিধাবঞ্চিত  অসহায়  শিশুদের সহ সমাজের সকল মানুষের মাঝে সেজন্য সকলের দোয়া কামনা করেন।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিদ্যানীড়ের শিশুদের নিয়ে কবিতা আবৃত্তি, গান ও গজলের প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।  প্রতিযোগিতা শেষে বিদ্যানীড়ের শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

Comments are closed.