যে ধরনের মানুষের সঙ্গে ভুলেও মিশবেন না!

Muktijoddhar Kantho , Muktijoddhar Kantho
নভেম্বর ১২, ২০১৭ ১২:১৪ অপরাহ্ণ

লাইফ স্টাইল রিপোর্ট : আপনি কি মানসিক ভাবে খুব শক্ত? সব সময় হাসিখুশি থাকতে পছন্দ করেন? তাহলে সব ধরনের মানুষকে নিজের জীবনে প্রশ্রয় দেবেন না। এমন কিছু মানুষ আপনার চারপাশে ঘোরাফেরা করছে যাদের মানসিকতা সবসময় নেতিবাচক। এই ধরনের সঙ্গ আপনার জীবনকেও বিষিয়ে দিতে পারে। ভাবছেন তো, কী ভাবে শনাক্ত করবেন এঁদের? ন’টি চরিত্রগত বৈশিষ্ট্য দেখে সহজেই চিনে নিন এমন মানুষদের।   

সমালোচক এবং বিচারক মানসিকতার মানুষজনের সঙ্গ এড়িয়ে চলুন। এমন কিছু মানুষ আছে যারা সবসময় একপেশে বিচারবুদ্ধি নিয়ে চলে। নিজের মানসিকতাকেই জাহির করার চেষ্টা করে। সমালোচনা ভাল তখনই যখন সেটা যুক্তিগ্রাহ্য। কিন্তু এরা সব কাজেই অনাবশ্যক খুঁত ধরে বেড়ায়—সেটা ভাল হোক বা মন্দ। এই ধরনের মানুষের সঙ্গ জীবনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে।  

অলস প্রকৃতির মানুষদের কাছে ঘেঁষতে দেবেন না। এই ধরনের মানুষ কখনওই কোনও কাজে উৎসাহ দেখান না। যার প্রভাব চারপাশের মানুষজনের উপরেও পড়ে। এই সঙ্গে পড়লে কিছুদিন পর দেখবেন আপনিও কোনও কাজে উৎসাহ পাচ্ছেন না। জীবনে অবসাদ নেমে আসছে।  

অহংকারী মানুষের সঙ্গ ত্যাগ করুন। আপনার কোনও বন্ধু বা অফিসের সহকর্মী কি কথায় কথায় আপনাকে ছোট করার চেষ্টা করে? দেখায়, নিজেই মহান, একাই কাজের? আপনার যে কোনও কাজকেই অবহেলা করে? তাহলে সাবধান! না, আপনি ভুল নন। তবে ভুল সঙ্গে পড়েছেন।   

ঈর্ষাকাতর সহকর্মী বা বন্ধুর সঙ্গ নৈব নৈব চ। এই মানসিকতার লোকজন সামনে খুব ভাল মানুষটির মতো থাকেন। যেন আপনার একান্ত শুভাকাঙ্খী। কিন্তু আড়ালে আপনারই ক্ষতি করার চেষ্টা করতে থাকেন। হিংসার মনোভাব পতনের কারণ। এঁদের উপেক্ষা করুন।  

আপনার কোনও বন্ধু বা সহকর্মী কি খুব ‘শো অফ’ করেন? তাঁদের কথা শুনতে শুনতে আপনি ক্লান্ত? এত ভাবছেন কেন? এঁদের উপেক্ষা করুন। না হলে, আপনার উৎসাহ এবং মানসিকতা দু’য়ের উপরেই প্রভাব পড়বে।  

কিছু মানুষ আছে যারা ভুল হলেই কঠোর শাস্তির বিধান দিয়ে দেয়। ভুল শোধরানোর বিন্দুমাত্র চেষ্টা করে না। দেখবেন, চাহিদা পূরণ না হলেই এদের মানসিকতার আমূল পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে। বদলে গিয়েছে কথা বলার ধরনও। এই ধরনের মানুষের সঙ্গ ত্যাগ করুন।আপনি কি জীবনে অনেক উন্নতি করতে চান? অনেক স্বপ্ন আপনার দু’চোখে? তাহলে লক্ষ্যহীন এবং ছন্নছাড়া বন্ধু বা সহকর্মীদেরএড়িয়ে চলুন। আপনার চলার পথে এরাই কিন্তু মূল বাধা।

আপনার বন্ধুরা কি খুব গসিপ করে? আপনার পিছনেই কানাঘুষো করছেন আপনারই সহকর্মী? ভুলেও এদের ফাঁদে পা দেবেন না। এই ধরনের মানুষজন চূড়ান্ত নেতিবাচক। যার প্রভাব পড়তে বাধ্য আপনার জীবনে।  
আপনি কি মিথ্যা কথা বলেন? সময় এবং পরিস্থিতির বিচারে বলেছেন নিশ্চয়ই। জানেন তো, এমন কিছু মানুষ আছে যারা সবসময় মিথ্যার আশ্রয় নেয়? এই ধরনের মানুষকে উপেক্ষা করুন। আপনার মনকে যে কোনও কারণে বিষিয়ে দিতে এদের জুড়ি মেলা ভার।  সূত্রঃ আনন্দবাজার

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/১২-নভেম্বর২০১৭ইং/নোমান

Comments are closed.

LATEST NEWS