পাকুন্দিয়ায় আট বছর ধরে চলছে পরিত্যক্ত ভবনে পাঠদান : চরম দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা

নূরুল জান্নাত মান্না, পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি ।। কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার ১০নং সুখিয়া ইউপির চরপলাশ উচ্চ বিদ্যালয় ভবনের আটটি কক্ষ দীর্ঘ আট বছর যাবৎ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। যেকোন সময় শিক্ষার্থীদের উপর খসে পড়ছে ভবনের ছাদ। বর্ষায় ছাদ ভিজে থাকায় ওই সময় বেশি শঙ্কিত থাকে শিক্ষার্থীরা। এমনকি বিমে ফাটল দেখা দেয়ায় সর্বক্ষণ আতঙ্কে থাকতে হয় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের।

উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও কেউ কোন কার্যকর পদক্ষেপ নেয়নি বলে দাবী করছেন বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী, ১০জন শিক্ষক ও ৫জন কর্মচারী রয়েছে ওই বিদ্যালয়ে। এসএসসি ও জেএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সাথে উত্তীর্ণ হয়ে আসছে বিদ্যালয়টি।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের উত্তর পার্শ্বের ভবনটি সম্পূর্ণ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। ভবনটির সামনের ও ভিতরের পিলারগুলোর পলেস্তারা খসে পড়ায় রড বেরিয়ে পড়েছে।

বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীরা জানান, আমরা ক্লাস রুমে সব সময় আতঙ্কে থাকি। প্রায়ই মাথার উপরে ক্ষয়ে পড়ে পলেস্তরা। তবুও এই ভাবেই আতঙ্কের মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করার জন্য বাধ্য হয়ে ক্লাস করতে হয়।

বিদ্যালয়ের এই সমস্যা নিরসনে অতি সত্বর সরকারের পদক্ষেপ কামনা করেছেন শিক্ষার্থীরা।

 

 

 

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ