কুলিয়ারচর আবাসিক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ঘুষ দুর্নীতির অভিযোগে মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ,
জানুয়ারি ২, ২০১৮ ৮:৩১ অপরাহ্ণ

মুহাম্মদ কাইসার হামিদ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি ।। কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর আবাসিক প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ঘুষ দুর্নীতির অভিযোগে মানববন্ধন করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকারের বিদ্যুৎ ও জ্বালানী মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপি দিয়েছে ভুক্তভোগী পিডিবি’র সাধারণ বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। গত ১ জানুয়ারী সোমবার দুপুরে উপজেলার পৌর এলাকার ভুক্তভোগী বিদ্যুৎ গ্রাহক ও সচেতন জনগন ব্যানার এবং ফেস্টুন নিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরে মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর এ স্মারক লিপি প্রদান করেন। স্মারক লিপিতে তারা উল্লেখ করেন, বিদ্যুৎ গ্রাহক খুরশিদ আলম হিসাব নং-ডি/৮৬৮৭, মিটার নং-১৪৪৮৫৮৯৮ এর নাম পরিবর্তন ও কিলোওয়াট বৃদ্ধির জন্য আবাসিক প্রকৌশলীর বরাবর একটি লিখিত আবেদন করিলে আবাসিক প্রকৌশলী তাহার নাম পরিবর্তন করার আশ্বাস দিয়ে কিলোওয়াট বৃদ্ধির প্রয়োজন নেই বলে জানান। শুধু নাম পরিবর্তনের জন্য খুরশিদ মিয়ার নিকট থেকে আবাসিক প্রকৌশলী মোয়াজ্জেম হোসেন ১৮ হাজার টাকা ঘুষ নেন। পরবর্তীতে কিলোওয়াট বৃদ্ধির নাম করে খুুরশিদ মিয়ার নিকট থেকে ঘুষ দাবী করে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩১ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ১০ ঘটিকার সময় অফিসের কর্মচারী ও এলাকার বখাটে কিছু যুবকদের সহযোগীতায় খুরশিদ মিয়ার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার চেষ্ঠা করে। পরে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী কুলিয়ারচর থানা পুলিশের সহায়তায় বিদ্যুৎ সংযোগ রক্ষা করে। পৌর এলাকার আশ্রবপুর মহল্লার আব্দুল্লাহ মিয়ার বাড়ীর আবাসিক বিদ্যুৎ সংযোগটি বিনা নোটিশে বিচ্ছিন্ন করিয়া তাকে বিদ্যুৎ অফিসে ডেকে নিয়ে তার নিকট থেকে ১০ হাজার টাকা, খরকমারা মহল্লার সোহেল মিয়ার নিকট থেকে নতুন সংযোগ প্রদানের জন্য ৫ হাজার টাকা,পূর্ব গাইলকাটা মহল্লার মোঃ চাঁন মিয়ার আবাসিক সংযোগের মিটারটি বিকল হয়ে যাওয়ার কারণে নতুন মিটার স্থাপন করিয়া তাহার নিকট থেকেও ২০ হাজার টাকা ঘুষ নেন বিদ্যুৎ অফিসের আবসিক প্রকৌশলী। স্মারক লিপিতে উল্লেকিথ অভিযোগ ও বিদ্যুৎ গ্রাহকদের নিকট ঘুষ নেওয়ার কথা অস্বীকার করে তাদের অভিযোগ মিথ্যা দাবী করে কুলিয়ারচর বিদ্যুৎ সরবরাহ বিউবো আবাসিক প্রকৌশলী (সহঃ প্রঃ) মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, গত ৩০ ডিসেম্বর রাত ১০টা ৪০ মিনিটের সময় উপজেলার দ্বাড়িয়াকান্দিস্থ স্টিল ব্রিজ সংলগ্ন অটো চার্জিং কারখানা পরিদর্শন কালে দেখা যায়, হিসাব নং- ডি/৮৬৮৭ মোঃ খোর্শেদ আলম এর সংযোগের মিটারে অবৈধ ভাবে দুটি হুকিং তারের মাধ্যমে মিটার বাইপাস করে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছে। এ সময় বিদ্যুৎ অফিসের লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা তড়িঘরি করে হুকিং লাইন খুলে ঘরে নিয়ে যাওয়ার সময় অফিসের লোকজন অবৈধ হুকিং তারটি হাতে নেওয়ার চেষ্টা করলে একপর্যায়ে উত্তেজনা কর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। পরে সংযোগটি পুনঃ সংযোগ দিতে বাধ্য করে। এ ঘটনার ৩০-৪০ মিনিট পর কতিপয় উশৃঙ্খল লোকজন মিছিল সহকারে বিদ্যুৎ অফিসে এসে হামলা করে ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে অকথ্য ভাষায় আবাসিক প্রকৌশলীকে গালিগালাজ করে চলে যায়। এ ব্যপারে তিনি পরদিন অর্থাৎ ৩১ ডিসেম্বর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। এ অভিযোগ দাখিলের পরদিন খোর্শেদ মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে ১ ডিসেম্বর দুপুরে লোকজন নিয়ে প্রকৌশলীর নামে মিথ্যা অভিযোগ তুলে মানববন্ধন করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি স্মারক লিপি দিয়েছে বলে আবাসিক প্রকৌশলী বলেন। এ ঘটনায় এলাকায় তুলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে।

Comments are closed.