তিন বন্ধুর ভাবনা : নুরুচ্ছালাম গালিব

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ,
জানুয়ারি ৩, ২০১৮ ১১:০৪ অপরাহ্ণ

সাহিত্য ও সংস্কৃতি ।। কামাল,জামাল,হাসান।তারা তিন বন্ধু। তাদের সম্পর্ক সেই ছেলেবেলা থেকে। তারা এক মাদ্রাসায় একই ক্লাসে পড়ে। হাসানের বাবা এই মাদ্রাসায় চাকুরী করে। তিন বন্ধু একদিন বসে আছে। এমন সময় কামাল বলে,চল আমরা ভাল কিছু কাজ করি। জামালও বলে চল কিছু করি। এমন সময় হাসান বলল না,কিছু করার আগে আমরা ভাল হয়। তাদের মধ্যে হাসান অন্য রকম।তার বাবা-মা নামাযী। তার বাবার মতো বন্ধুদের নিয়ে মসজিদে যায়,পাঁচ ওয়াক্ত নামায পড়ে। এভাবে আস্তে আস্তে বন্ধুদেরকেও নামাযী বানিয়ে ফেলল। তারা আগে নিজে সংশোধন হয়ে অন্যকে সংশোধন করেছে। নামায পরে পাল্টে দেয় জীবন্ টাকে। এভাবে তারা গ্রামকে দ্বীনি ইলম শিক্ষা গড়ে তুলে। হঠাৎ একদিন হাসান শুনতে পেল তার বাবাকে গ্রাম থেকে ট্রান্সফার করে ঢাকার কাছে এক মাদ্রাসায় নেয়া হয়েছে। হাসানের পরিবারকে তাই সেখানে যেতে হবে। বন্ধুদের বললে তাদের কষ্ঠে বুক ফেটে গেল। এতদিন একসাথে চলাফিরা করেছে। আজ কিভাবে বিদায় দিবে। কষ্ঠে বুক ফাটালে আর কিহবে বিদায় দিতে হবেই। তারা চলে গেল ঢাকায়। তারা চলে গেলে কিহবে তাদের রেখে যাওয়া সততার স্মৃতি রয়ে গেছে। তাদের যদি স্বভাব ভাল না থাকত তাহলে তাঁদেরকে কেউ স্বরণ করতো না। তাই, যদি ভাল কিছু করতে চাও তাহলে নিজে ভাল হয়ে কাজ করতে হবে। তাহলে সফলতা আসবেই। এবং এই ভাল কাজের জন্য এমন হতে পারে যুগ যুগ ধরে করবে মানুষ তুমায় স্বরণ, আল্লাহ হবেন রাজি, তুমি পেয়ে যাবে তার ক্ষমা।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া