ব্যাননের ‘মাথা খারাপ হয়ে গেছে’ : ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক রিপোর্ট : হিলারি ক্লিনটনের বিরুদ্ধে ডোনাল্ড ট্রাম্পের লড়াইটা খুব একটা সহজ ছিল না। তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচনের বৈতরণী পার হয়ে আসার ক্ষেত্রে ট্রাম্পকে যারা সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছিলেন তাদের একজন স্টিফেন কে. ব্যানন। হোয়াইট হাউজে ট্রাম্পের চিফ স্ট্যাটেজিস্ট পদে দায়িত্ব পেয়েছিলেন তিনি।

সেই ব্যাননকেই বরখাস্তের সিদ্ধান্তে তাই অনেকে অবাক হয়েছিলেন। সঙ্গে সঙ্গে প্রতিবাদ না করলেও ধীরে ধীরে মুখ খুলতে শুরু করেছেন ব্যানন। যা ক্ষুব্ধ করেছে আমেরিকার ইতিহাসে সবচেয়ে বিতর্কিত প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে। ব্যাননের ‘মাথা খারাপ হয়ে গেছে’ বলেও দাবি করেছেন তিনি।

ট্রাম্পের বড় ছেলেকে ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’ বলে আখ্যা দিয়েছিলেন ব্যানন। তিনি ফাঁস করে দেন, রাশিয়ানদের সঙ্গে ট্রাম্পের ছেলের বৈঠক করার কথা। ট্রাম্পের বড় মেয়ে ইভাঙ্কাকে ‘বোকা’ বলেও আখ্যায়িত করেন। ট্রাম্প তার মেয়াদ পূর্ণ করতে পারবেন কী না- সে বিষয়ে সন্দেহ লুকাননি ব্যানন।

এবার এক বিবৃতিতে ট্রাম্প এসবের কড়া জবাব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘স্টিভ ব্যানন আমার কিংবা তার প্রেসিডেন্সির কিছুই করতে পারবে না। সে হোয়াইট হাউজে থেকে গণমাধ্যমের কাছে মিথ্যা তথ্য ফাঁস করে নিজেকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে জাহির করার চেষ্টা করেছে। সে শুধু এটাতেই দক্ষ।’ সূত্র : দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস

 

Comments are closed.