আহ্বান ।। নজির হোসেন

Muktijoddhar Kantho , Muktijoddhar Kantho
জানুয়ারি ৫, ২০১৮ ১২:৩৫ অপরাহ্ণ

 সাহিত্য ও সংস্কৃতি।।

আহ্বান 

নজির হোসেন

এসো প্রিয়া,চেপে যাও মোর জীবন গাঙের নায়ে।
পাশাপাশি দুজনে বসে ভেসে যাবো অচেনা গাঁয়ে।
মিছামিছি কেবলি কি ভাবো এ মিছে জগৎ নিয়ে?
স্বপ্নের ঘর বাঁধবো মোরা অপার ভালোবাসা দিয়ে।
জীবনতরীর পাল তুলে শক্ত হাতে ধরবো হাল।
স্বর্গের নন্দনকাননে সুখে রব দুজনে চিরকাল।
আসুক যত ঝড়ঝঞ্ঝা অসীম সাগরের উত্তাল ঢেউ!
তুমি রাজি হলে কভু শিকলে বেঁধে রাখে কি কেউ?
সুখের সংসার কাননে কত রঙিন কুসুম ফুটবে।
ছোট্টখোকাটি আধআধ স্বরে মা মা বলে ডাকবে।
তার মুখের হাসি চাঁদের জোছনার ঝিলিক দিবে।
তোমারি হৃদয় কাননে কত হরেক কুসুম ফুটবে।
কত হৃদয় ভরে আদরে তার গালে শত চুমি দিবে!
কি এত ভেবে আকাশের পানে চেয়ে থাকো নিরবে।
তব আমারে কেন মনে রেখে দেয়েছো কেন মন?
মরি কি বাঁচি তারি খোঁজ কেন করো যখন তখন?
চোদ্দটি বসন্তে তুমি শুনছো কত কোকিলের গান!
তোমারি উষ্ণ যৌবনতরঙ্গে করেছে কেউ আহ্বান?
কেন মজে রবে বড় হওয়ার অলীক মায়ার স্বপ্নে!
তব কেন রঙিন জাল বুনো আপন মনের গহনে?
পেয়েছো যা সমাজ ভুলে গ্রহন করো এখন।
পথহারা অলি চলে গেলে ফিরবে কি তখন?
মানব যা পায় তা ছুঁড়ে ফেলে দেয় আবর্জনায়।
কেন অলীক মরীচিকার পিছনে ছুটে অবলীলায়?
চেপে পড় মোর জীবন নায়ে সময়ে করো সাধনা।
পালে লাগলে হাওয়া কভু আর ফিরে আসবে না।
ভেবে দেখো প্রিয়া,মোর জীবন নায়ে করি আহ্বান।
হৃদয় ভরে উদাসীকন্ঠে গাইবো মোরা প্রেমের গান।
হৃদয় হৃদয়ের লাগি হৃদয় দিয়ে দিচ্ছি হাতছানি।
পাষাণহৃদয়ে বসে অবশেষে করবে কি প্রাণহানি?

Comments are closed.