টাকার অভাবে আটকে আছে ঢাবি’র মেধাবী শিক্ষার্থী কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ার মুন্নীর চিকিৎসা

আমিনুল হক সাদী, নিজস্ব প্রতিবেদক।। আমার দ্রুত ইন্ডিয়া যেতে হবে, কিন্তু টাকার অভাবে পারছি না,আমার মা বাবা কেউ নেই আপনাদের একটু সহানুভূতিই পারে আমার চিকিৎসার ব্যাবহুল খরচ”- ছলছল চোখে কথাটা প্রতিবেদকের কাছে বারবার বলছিল ফোনে সাবরিনা মমতাজ মুন্নী। ঢামেক হসপিটালের নতুন বিল্ডিংয়ের ১০ তলার ১০২ নং কেবিনে শুয়ে শুয়ে রঙিন স্বপ্নগুলোকে মরতে দেখছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ৪র্থ বর্ষের এই মেধাবী শিক্ষার্থী। শরীরে যে তার বাসা বেঁধেছে মরণব্যাধী ব্লাড ক্যান্সার (Allogenc stem cell transpant)। গত বছর সহায় সম্পত্তির প্রায় সবটা বিক্রি করে ভারত থেকে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থই হয়ে উঠেছিল প্রয়াত বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল হাসিম এর মেয়ে ম্ন্নুী। কিন্তু মাস আটেক না পেরোতেই আবার তার দেহে ফিরে এসেছে লিউকিমিয়া। রোগটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে দেহে। ঢামেক হাসপাতালের ডাক্তাররা জানিয়েছেন, মুন্নীকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব Allogenic stem cell transplant ( বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট) দেয়া প্রয়োজন। এই জন্য দরকার প্রায় ৪০ লাখ টাকা। যা তার পরিবারের পক্ষে বহন করা অসম্ভব। ইতোমধ্যে বিভিন্ন মহলে সাহায্যের জন্য আবেদন করা হয়েছে। সাহায্য চাওয়া হয়েছে সাধারণ মানুষের কাছেও। মুন্নীর সহপাঠী রাকিবুজ্জামান রাফি বলেন, আমরা কি পারি না, মেধাবী এই শিক্ষার্থীর মুখে আবার হাসি ফুটাতে? আমরা কি পারি না তার স্বপ্নগুলো বাঁচিয়ে রাখতে? আসুন, মুন্নীর দিকে আমরা সাহায্যের হাত বাড়াই, তাকে ক্যান্সারের থাবা থেকে মুক্ত করি।
সাহায্য পাঠানোর ঠিকানাঃ ৪৪০৫৭০১০২৪৬৭৯ সোনালী ব্যাংক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস শাখা। বিকাশ একাউন্ট- ০১৭১২০৬৪৮৮৯,নামঃ সাবরিনা মমতাজ মুন্নি, +৮৮০১৫২১৫৫৬৪২১ ইংরেজি বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। পিতাঃ প্রয়াত আবুল হাসিম একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ( গেজেট নং : ১২৪৪৬৪, স্মারক নং : ম. বি. ম/সা/ কিশোরগঞ্জ প্র: ৩/১৬/২০০২/২৯৭২, সেক্টর নং ১১। গ্রাম : তারাকান্দি, উপ : পাকুন্দিয়া, জেলা : কিশোরগঞ্জ। প্রয়োজনেঃ রাকিবুজ্জামান রাফিঃ ০১৫২১৫৬১১২৪।

Comments are closed.