ফাস্ট বোলিং ভয় পান ওয়াটসন!

স্পোর্টস রিপোর্ট : একজন প্রকৃত ব্যাটসম্যান কখনো কোনো বোলারকে ভয় পায় না। মনে মনে ভয় পেলেও প্রকাশ্যে আনার তো প্রশ্নই ওঠে না। কিন্তু শেন ওয়াটসনের কী হল? আসলে সাবেক সতীর্থ ফিল হিউজেসের অনাকাঙ্খিত মৃত্যুর পর ফাস্ট বোলিংয়ের বিপক্ষে ব্যাটিং করতে তার ভয় হয় বলে জানিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক শেন ওয়াটসন। তিনি বলেন, বলের আঘাতে হিউজেসের মৃত্যুর পর একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে ফাস্ট বোলিং মোকাবেলা করাটা তার জন্য কঠিন হয়ে গেছে।

২০১৪ সালে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া শেফিল্ড শিল্ড টুর্নামেন্টে ব্যাটিং করার সময় পেসার সিন অ্যাবটের বাউন্সার হিউজেসের মাথায় লাগে। পরক্ষণেই হিউজেসকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আঘাতের কারণে কয়েকদিন পর হাসপাতালেই মারা যান ২৫ বছর বয়সী এ উঠতি তারকা।

সিডনি মর্নিং হেলরাল্ড পত্রিকাকে ওয়াটসন বলেন, ‘সত্যি বলতে কি হিউজেস মারা যাওয়ার পর আমি ভীত হয়ে পড়ি। সব সময়ই আমার শক্তি ছিল ফাস্ট বোলিং। ফিল আগাত পাওয়ার সময় আমি স্লিপে ফিল্ডিং করছিলাম। সুতরাং প্রথমে আমি খুব বেশি ভয় পাইনি। তবে তার মৃত্যুর পর আমার খেলায় অনেক প্রভাব ফেলেছে।’

দেশের হয়ে এ পর্যন্ত ৫৯ টেস্ট, ১৯০ ওয়ানডে এবং ৫৮টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন ওয়াটসন। তবে দুর্ভাগ্যজনক সে ঘটনার পর নিজের রান করার ক্ষমতা বাধাগ্রস্ত হয়েছে বলে দাবী করেন তিনি। হিউজেসের মৃত্যুর পর নিজের খেলা সাত টেস্টে ওয়াটসন দুই হাফ সেঞ্চুরিতে ২৬.৯১ গড়ে মোট ৩২৩ রান করেছেন।

তিনি বলেন, ‘তাৎক্ষণিকভাবে ভদ্র খেলা ক্রিকেটে পরিবর্তন এসেছে। আমি জানতাম-অবশ্যই আমি আঘাত পেতে পারি- হেলমেট পর্যন্ত বল লাফিয়ে উঠলে আমার মুখে আঘাত পেতে পারি। চোখে আঘাত পেতে পারি। তবে মারা যেতে পারি সেটা ভাবিনি।’

২০১৬ আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর সকল প্রকার ক্রিকেট থেকে অবসর নেন এ অল-রাউন্ডার।

Comments

comments

You might also like More from author

Comments are closed.

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ