ভালুকায় ঘন কুয়াশায় ৫ গাড়ির সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ২০

মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ।। ময়মনসিংহের ভালুকায় শনিবার (১৩ জানুয়ারী) সকালে ঘন কুয়াশার কারণে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের মেহরাবাড়ী নামকস্থানে ৫টি গাড়ির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে ঘটনাস্থলেই অজ্ঞাত নামা এক পূরুষ (২৫) নিহত হয় ও অন্তত ২০জন আহত হয়েছেন।

ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, ঘটনার সময় বালু ভর্তি ঢাকাগামী একটি ট্রাক (ঢাকা-মেট্রো-ট-১৮-৮০৬০) ঘন কুয়াশার মাঝে মহাসড়কের মাঝ খানে দাড় করায়। নেত্রককোণা থেকে ছেড়ে আসা ইকরা পরিবহণের একটি বাস (ঢাকা-মেট্রো-ব-১২-০৩৭২) ট্রাকের পিছনে ধাক্কা লেগে ধুমড়ে মুচড়ে যায়, এ সময় পিছনে থেকে নম্বর বিহীন একটি মোটরসাইকেল এসে বাসের পেছনে ধাক্কা লাগে রাস্তার পাশে খাদে ছিটকে পড়ে যায়।

পর্যায়ক্রমে ঢাকাগামী অপর একটি মাইক্রোবাস (ঢাকা-মেট্রো-ঠ-১১-৮৭১৫) মহা সড়কে এ দুর্ঘটনা দেখে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায় এর পাশাপাশি অপর একটি বাসও (ঢাকা-মেট্রো-১৪-০২৫৩) মাইক্রোবাসটি পেছেনে গিয়ে ধাক্কা দিয়ে রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। এতে মাইক্রোবাটি ধুমড়ে মুচড়ে যায়। খবর পেয়ে ভালুকা ফায়ার সার্ভিস, ভরাডোবা হাইওয়ে ও ভালুকা মডেল থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে নিহত ও আহতদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করে। স্থানীয়রা ধারণা করছেন নিহত ব্যক্তি মোটরসাইকেল আরোহী।

আহত ৪জনের পরিচয় পাওয়া গেছে তাঁরা হলেন, ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার নিজবাখাইল গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে খোকন (৪০), ওই উপজেলার রায়মনি গ্রামের শামসুদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪০), ফুলবাড়িয়া উপজেলার আছিম গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে আব্দুল মজিদ (৩৫) ও ময়মনসিংহ সদরের জালাল উদ্দিনের ছেলে আব্দুস ছালাম (৩৫)। আহত ৪জনের অবস্থা আশংকা জনক থাকায় তাঁদেরকে ভালুকা হাসপাতাল থেকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

ভালুকা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার রাকিবুল হাসান জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত ব্যক্তিকে উদ্ধার করি এবং আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করি। ভরাডোবা হাইওয়ে ফাড়ি পুলিশের ইনচার্জ এসআই আব্দুস ছালাম জানান, ঘন কুয়াশার কারনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ভালুকা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের কর্তব্যরত ডাক্তার রুবেল হোসেন জানান, আমাদের এখানে ৪জনকে আনা হয়েছে তাদের সবার অবস্থায় আশংকা জনক রয়েছে।

Comments are closed.