জানাজা শেষে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর

ডেস্ক রিপোর্ট ।। নেপালে বিমান দুর্ঘটনায় নিহতদের লাশ রাজধানীর আর্মি স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় জানাজা শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে আর্মি স্টেডিয়ামে জানাজা হয়। এ সময় নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

জানাজা শেষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বিএনপি নেতা অবসরপ্রাপ্ত মেজর হাফিজ উদ্দিন, প্রাক্তন নৌবাহিনী প্রধান ও বিএনপি নেতা আলতাফ হোসেন চৌধুরীসহ বিভিন্ন নেতারা নিহতদের শ্রদ্ধা জানান। পরে নিহতদের লাশ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে নেপাল থেকে ২৩ জনের লাশবাহী বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি বিশেষ প্লেন ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছে। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামাল। পরে লাশগুলো অ্যাম্বুলেন্সযোগে আর্মি স্টেডিয়ামে নেওয়া হয়।

যাদের লাশ বাংলাদেশে আনা হয়েছে তারা হলেন- উম্মে সালমা, আঁখি মনি, বেগম নুরুন্নাহার, শারমিন আক্তার, নাজিয়া আফরিন, এফ এইচ প্রিয়ক, বিলকিস আরা, আখতারা বেগম, মো. রকিবুল হাসান, মো. হাসান ইমাম, মিনহাজ বিন নাসির, তামাররা প্রিয়ন্ময়ী, মো. মতিউর রহমান, এস এম মাহমুদুর রহমান, তাহারা তানভীন শশী রেজা, অনিরুদ্ধ জামান, রফিক উজ জামান, পাইলট আবিদ সুলতান, কো-পাইলট পৃথুলা রশিদ, সানজিদা, নুরুজ্জামান, খাজা সাইফুল্লাহ ও ফয়সাল।

উল্লেখ্য, গত ১২ মার্চ নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণকালে বিধ্বস্ত হয় ইউএস-বাংলার ফ্লাইট বিএস২১১। এতে  নিহত হন ৫১ জন। তাদের মধ্যে ২৬ জনই বাংলাদেশি।

Comments are closed.