গাবতলীতে মরিচের বাম্পার ফলন, পরিচর্যায় ব্যস্ত কৃষক

Muktijoddhar Kantho , Muktijoddhar Kantho
মে ৪, ২০১৮ ৪:২৪ অপরাহ্ণ

আল আমিন মন্ডল, গাবতলী (বগুড়া) প্রতিনিধি ।। বগুড়ার গাবতলী ও শিবগঞ্জের কৃষকরা সবজি চাষের পাশাপাশি লাভজনক সনিক মরিচের ব্যাপক চাষ করেছে। ফলে এবছরে মরিচের বাম্পার ফলন হয়েছে।

কৃষকরা এখন ক্ষেতে লাগানো হাইব্রীড সনিক মরিচ গাছের পরিচর্য়া করতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

গতবছরে মরিচের দাম ভাল পাওয়ায় এবছরে উপজেলা দুইটিতে কৃষকরা বাণিজ্যিক ভাবে সনিক মরিচ চাষ করে এখন তারা স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। তবে বগুড়া জেলাজুড়ে প্রতিবছরে বাড়ছে মরিচের চাষ। তাই কৃষকদের মুখেমুখে এখন লাল তীর সীড লিঃ হাইব্রীড সনিক মরিচের নাম। এমৌসুমে সনিক মরিচ চাষ বেশী হওয়ায় বাম্পার ফলন ও দাম ভাল হওয়ায় কৃষকদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

সূত্র জানায়, উত্তরাঞ্চলের সবজির রাজধানী বলে খ্যাত গাবতলী ও শিবগঞ্জ উপজেলা। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মহাজন ও ব্যবসায়ীরা এসে এলাকাগুলো থেকে সবজি নিয়ে রাজধানী’সহ সারা দেশে বিক্রি করতে নিয়ে যায়। এসব এলাকার কৃষকরা বছরজুড়েই সবজি চাষ করে আসছে। বিশেষ করে গাবতলী নশিপুর, বালিয়াদিঘী, কাগইলের মীরপুর, ককাগইল, কৈঢোপ, তেলকুপি, শিবগঞ্জের মহাস্থান, পালিকান্দা, ধাওয়াকোলা ও গোকুল’সহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপকভাবে সবজি চাষ হচ্ছে। এবছরেও কাগইল, বালিয়াদিঘী, নশিপুর ও শিবগঞ্জ এলাকায় কৃষকরা ব্যাপকভাবে মরিচ চাষ করছে। সবচেয়ে বেশী মরিচ চাষ হয়েছে বালিয়াদিঘী ও নশিপুর এবং শিবগঞ্জ পুনেরটিকা এলাকায়। নশিপুরের মাঝবাড়ী গ্রামের কৃষক তোফাজ্জল জানান, চলতি মৌসুমে আমরা লাভজনক ফসল হিসেবে সনিক মরিচ চাষ করছি।

একই এলাকার কৃষক মোখলেছার জানান, লাল তীর সীড লিঃ হাইব্রীড সনিক মরিচের জাত চাষ করা’য় বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারে প্রতিকেজি মরিচ ৪০থেকে ৪৫টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর্দশ কৃষক ফেরদৌস হাসান জানান, লাল তীর সীড লিঃ হাইব্রীড মরিচ সনিক জয়পুরহাট মেসার্স রায়হান বীজ ভান্ডার থেকে ৫গ্রাম (৩প্যাকেট) বীজ ক্রয় করে ১৬শতাংশ জমিতে রোপন করেছি। এরপর বীজ ও সার এবং বালাইনাশকে খরচ হয়েছে ৪হাজার ২শত টাকা। প্রথম দফায় ১২মন মরিচ বিক্রি করে ১০হাজার টাকা ও ২য় দফায় ১৮মন মরিচ বিক্রি করে ১৬হাজার ৫শ টাকা পেয়ে আমি বেশ লাভবান হয়েছি। এখনো গাছে প্রচুর মরিচ আছে এবং আশা করছি আরোও ৩০থেকে ৩৫হাজার টাকার মরিচ বিক্রি করতে পারবো। হাট-বাজারে অন্যান্য মরিচের তুলনায় সনিক মরিচের চাহিদা তুলনামূলক ভাবে অনেক বেশী হওয়ায় আমরা খুব খুশি।

এমনকি মরিচ গাছে রোগ বালাই কম ও দীর্ঘ দিন ফলন দেয়। ফলে কৃষকদের মাঝে হাইব্রীড মরিচ সনিকের বীজ ও চারা গাছের চাহিদা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ মরিচ চাষে কৃষক সুফল পাওয়ায় শিবগঞ্জের পুনেরটিকা গ্রামে হাইব্রীড মরিচ সনিকের মাঠ দিবস পালিত হয়েছে। মাঠ দিবসে কৃষকদের মুখেমুখে ছিল লাল তীর সীড লিমিটেড সনিক মরিচের প্রশাংসা ও চাষিদের মুখে হাসির ঝিলিক ফুটে উঠেছে। লাল তীর সীড লিঃ বগুড়া অফিসের ডিভিশনাল ম্যানেজার শফিকুর রহমান, রিজিওনাল ম্যানেজার কৃষিবিদ হুমায়ূন কবীর ও পি.ডি.এস ম্যানেজার এমদাদুল হক, জাকির হোসেন, টেরিটরি ম্যানেজার আব্দুস সালাম ও সেলস অফিসার আলী আকবর জানান, কৃষকরা এবছরে ব্যাপক সনিক মরিচের চাষ করেছে। এমনকি সনিক মরিচ সারা বছর চাষ করা যায়।

কৃষক’সহ নারী শ্রমিকেরা এখন মরিচ ও গাছের পরিচর্য়া কাজে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন। আমাদের হাইব্রীড সনিক মরিচ চাষ করে কৃষকদের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষকের উৎপাদন বাড়লে আয় ও চাহিদা বাড়বে। বগুড়া সদর উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম জানান, মরিচ চাষে কৃষকদের পরিশ্রম একটু বেশী হলেও এবছরে ফলন এবং দাম ভাল পাওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে।

 

Comments are closed.

LATEST NEWS