“পরীক্ষায় খারাপ করা মানেই কম মেধাবী নয়”

Muktijoddhar Kantho , Muktijoddhar Kantho
মে ৬, ২০১৮ ১১:০০ পূর্বাহ্ণ
মোঃ মেহেদী হাসান ।।  যেকোনো জিনিস বা বিষয়ের ভালো-মন্দের দিক যাচাই-বাছাই করা হয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার মাধ্যমে। বলা যেতে পারে, সবকিছুর ভালো-মন্দ দিক যাচাই-বাছাইয়ের নানা মানদন্ড আছে। শিক্ষার্থীরা পড়ালেখায় কেমন তা যাচাই করার জন্য পরীক্ষার আয়োজন করা হয়। তাতে অনেকে ভালো করে। অনেকের ফল হয় মন্দ। রেজাল্ট বা ফলাফল ভালো হলে তার মূল্যায়ন করা হয় ভালোভাবে। আর কেউ পরীক্ষায় খারাপ করলে মানুষ তাদের খারাপ শিক্ষার্থী মনে করেন।
পরীক্ষার ফল খারাপ হলেই যে তাদের সবাই খারাপ শিক্ষার্থী, এমন ভাবা ঠিক নয়। অনেক সময় অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী পরীক্ষার আগে প্রচুর পড়ালেখা করেও নানা কারণে ভালো রেজাল্ট করতে পারে না। আবার অনেকে অল্প পরিশ্রম করেও পরীক্ষায় অধিক নম্বর পায়। রেজাল্ট ভাল হলে সবাই তার প্রশংসা করে। আর রেজাল্ট খারাপ হলে সবার কাছ থেকে পাওয়া যায় তার উল্টোটা।
‘এসএসসি’ হলো আমাদের শিক্ষা জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পাবলিক পরীক্ষা। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় নানা পরিবর্তন এসেছে সময়ের পালাবদলে। আগের দিনে শিক্ষার্থীরা যে ধারায় পড়তো, বর্তমানে তা একেবারে পাল্টে গেছে।
অনেকে বলেন, শিক্ষার্থীরা এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি পড়ালেখা করে। তাই শুধু পাঠ্যবিষয় নয়, বরং এর বাইরের অনেক বিষয় সম্বন্ধেও বেশ ভালই বোঝে। এর মূলে রয়েছে, প্রযুক্তির ক্রমোন্নতি। কম্পিউটারে ক্লিক করলেই মুহূর্তেই অনেক বিষয়সম্বন্ধে ব্যাপক ধারণা পাওয়া যায়। মোবাইল ফোনের মাধ্যমেও অনেক বিষয় সম্বন্ধে জানা যায়। বিপরীতে অনেকে বলেন, কয়েক যুগ আগে শিক্ষার্থীরা লেখাপড়ার ব্যাপারে বর্তমানের চেয়ে বেশি পরিশ্রম করতো। নোটবই, গাইটবই, কম্পিউটার ইত্যাদি ছিল না বলা যায়। অনেক সময় অনেকদূর হেঁটে পৌঁছতে হতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে, তাই পড়ালেখার প্রতি তাদের দরদ বা আকর্ষণ বেশি ছিল ওই সময়েও অনেকে প্রচুর পরিশ্রম করেও ভালো ফলাফল দেখাতে পারতো না। অনেকে বলেন, আজকাল শিক্ষাক্ষেত্রে এমন কিছু পদ্ধতি প্রবেশ করানো হয়েছে, যার ফলে অপেক্ষাকৃত কম মেধাবীরাও পরীক্ষায় অধিক নম্বর পায়।
অবশ্য খুব কম অভিভাবকই বুঝতে পারেন যে, পরীক্ষায় ভালো করতে না পারলেই সন্তান খারাপ বা কম মেধাবী হয়ে যায় না। যারা এটা বোঝে তাদের মনে অনেক সময় সান্ত্বনা জাগে এজন্য যে, এবার না হয় ও খারাপ করেছে, আগামীতে নিশ্চয় আশানুরূপ ফল করবে। অনেক সময় টাকার জোরে অনেকে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে চায়। অথচ তাদের বুঝা উচিত, টাকা দিয়ে বাঘ-সিংহের চোখ মিললেও সবকিছু মিলে না।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া