ভালোবাসার আরেক নাম মঈনুজ্জামান অপু

আতিকুর রহমান কাযিন, নিজস্ব প্রতিবেদক ।। এলাকার সাধারণ মানুষের কথা শুনতে মাঠে নেমেছেন জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ
আশরাফুল ইসলামের মামাতো ভাই মঈনুজ্জামান অপু। বেশ কিছুদিন ধরে এলাকার মেঠো পথে চষে বেড়াচ্ছেন। হাঁটছেন পাটক্ষেত, ধানক্ষেতের আল ধরে। হয়ে উঠছেন গেঁয়ো মাটির মানুষ। গায়ে যেন রাজনীতির চিহ্ন ফুঁটে উঠেছে। এলাকার নারী থেকে শুরু করে,ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের মুখে এই তরুণের নাম বয়ে বেড়াচ্ছে। এ আসনে অবহেলিত নেতাকর্মীদের সাথে পথসভা কিংবা মতবিনিময় করে শুনছেন নানান সুখ-দুঃখের কথা। আর এজন্যই নির্যাতিত নেতা কর্মীদের পাশে থেকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীরীগের মনোনয়ন পেতে (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া)- ২ আসনের বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামীলীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা কিংবা গণসংযোগে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন।

ইতিমধ্যে দল থেকে তাকে নির্বাচনী মাঠ গোছানোর কথা বলা হয়েছে। আর এর অংশ হিসেবে গতকাল কটিয়াদী উপজেলার মসূয়া ইউনিয়নের বেতাল,আলগীরচর,পংমসূয়া,কাজিরচর সহ বেশকিছু মার্কেটে গণসংযোগ করেন। আর এতে এলাকার সর্বস্তরের মানুষ স্বতঃফ’র্তভাবে অংশ গ্রহন করেন।

এসময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মঈনুজ্জামান অপু বলেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১ সাফল্য করার জন্য যা প্রয়োজন
আমি তা পূরণ করবো। যদি জনগণ আমাকে সে সুযোগ করে দেয় তাহলে এলাকার যা যা প্রয়োজন তা আমি করবো। কর্মীদের নির্যাতিত বিষয়ে জানতে চাইলে মঈনুজ্জামান অপু বলেন,অরাজনৈতিকদের হাতে নেতাকর্মীরা নিরাপদ নয়। আগামী নির্বাচনে নেতাকর্মীরা সচল থাকবে এমনটাই প্রত্যাশা মঈনুজ্জামান অপু‘র।

এসময় আওয়ামীলীগ,ছাত্রলীগ,যুবলীগ,কৃষকলীগ সহ সর্বস্তরের জনগণ উপস্থিত ছিলেন। কটিয়াদী ও পাকুন্দিয়া -২ আসনের বিভিন্ন এলাকায় আওয়ামীলীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের সাথে কথা বললে তারা বলেন,একজন সৎ নিষ্ঠাবান নেতা পেয়ে নতুন করে প্রাণ ফিরে পেয়েছেন এমনটাই কর্মীদের প্রত্যাশা। নেতাকর্মীরা মনে করেন তাকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হলে নৌকার বিজয় নিশ্চিত হবে বলেও জানান তারা।

মুক্তিযোদ্ধার কণ্ঠ ডটকম/০৭-মে২০১৮ইং/এন


আরও পড়ুন