হোসেনপুরে কালবৈশাখী ঝড়ে শতাধিক বসতবাড়ি ও গাছপালা বিধ্বস্ত

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ,
মে ৮, ২০১৮ ৭:৫৪ অপরাহ্ণ

ওমর ফারুক খান জনি, নিজস্ব প্রতিবেদক ।। হোসেনপুরের বেশ কয়েকটি গ্রামে মঙ্গলবার সকালে ভয়াবহ কালবৈশাখী ঝড়ে শতাধিক বসতবাড়িসহ কয়েক শতাধিক গাছপালা বিধ্বস্ত হয়েছে। ঝড়ে বসতঘরের নিচে চাপা পড়ে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। এসময় উঠতি বোরো ফসলের প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মামুন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

সরেজমিন এলাকায় গিয়ে জানা গেছে, উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের গাংগাটিয়া, পানান, ডাংরী, বোয়ালিয়ারচর, সৈয়দপুরসহ বেশ কয়েকটি গ্রামে ভয়াবহ কালবৈশাখী ঝড় বয়ে গেছে। ঝড়ের তান্ডবে বসতঘরবাড়ি ও গাছপালা বিধ্বস্থ ও বোরো ফসল ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। প্রায় বাড়িতেই বসতঘরবাড়ি ভেঙ্গে পড়েছে। অনেক স্থানে বিদ্যুতের তারের উপর গাছপালা ঝুলতে দেখা গেছে। এতে ওই এলাকাগুলো পুরোপুরি বিদ্যুতবিহিীন অবস্থায় রয়েছে। অনেক গাছ বসতঘরের উপর পড়ায় ঘরের নিচে চাপা পড়ে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।

গাঙ্গাটিয়া গ্রামের দিনমজুর অজয় চন্দ্র দে জানান, একটি রেইনট্রিগাছ ঝড়ে তার বসতঘরের উপর ভেঙ্গে পড়েছে। এতে তিনি ও তার স্ত্রী রুপা রাণী ঘরের মধ্যে আটকা পড়ে আহত হয়েছেন। পরে এলাকাবাসী তাদেরকে উদ্ধার করে। তিনি আরো জানান, একমাত্র বসতঘরটি ভেঙ্গে পড়ায় এখন কোথায় থাকবেন সে চিন্তা করতে পারছেন না তিনি।

একই এলাকার সতেন্দ্র চন্দ্র দাস জানান, কালবৈশাখী ঝড়ে তার তিনটি রেইট্রিগাছ ভেঙ্গে পড়েছে। ডাংরি গ্রামে তাছলিমা খাতুন জানান, তার ঘর ভেঙ্গে পড়েছে। বিদ্যুতের তার ছিঁড়ে গেছে।

একই গ্রামের বাসিন্দা আনিছুর রহমান খোকন জানান, তার ঘর সহ এলাকার অন্তত দুইশতাধিক বসতঘরবাড়ি ও হাজার হাজার গাছপালা ভেঙ্গে পড়েছে বলে তিনি জানান।

গোবিন্দপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম ভুঁইয়া এলাকায় কালবৈশাখী ঝড়ে ক্ষয়ক্ষতির কথা স্বীকার করেছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া