পদ্মা সেতু প্রকল্পে আরো ১৪০০ কোটি টাকা ব্যয়ের অনুমোদন

মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ ,
জুন ২১, ২০১৮ ৯:৪১ অপরাহ্ণ
অর্থনৈতিক রিপোর্ট ।। সরকারের অগ্রাধিকার প্রকল্প পদ্মা সেতু। ২০১৯ সালের মধ্যে এটি চালুর লক্ষ্য রয়েছে। প্রকল্পের নদীশাসন কার্যক্রম চলমান রাখতে অতিরিক্ত ১ হাজার ১৬২ দশমিক ৬৭ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করছে সরকার। এজন্য আরো ১৪০০ কোটি টাকা ব্যয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভায় পদ্মা সেতু প্রকল্পের জন্য এ অর্থ অনুমোদন দেওয়া হয়।

প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, অতিরিক্ত জমি অধিগ্রহণের অভাবে প্রকল্পের নদীশাসন কাজ ব্যাহত হচ্ছিল। জমি অধিগ্রহণ করতে প্রকল্পটি হাতে নেয় সরকার।

একনেক সভা শেষে প্রকল্পগুলো সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

তিনি বলেন, জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ১৫টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই ১৫টি প্রকল্প বাস্তবায়নে জন্য মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৮ হাজার ৩৭২ কোটি ২৪ লাখ টাকা।

পদ্মা সেতুর অতিরিক্ত ভূমি অধিগ্রহণ প্রকল্প সম্পকে তিনি জানান, পদ্মা বহুমুখী সেতু নির্মাণ প্রকল্পে অতিরিক্ত ১ হাজার ১৬২ দশমিক ৬৭ হেক্টর ভূমি অধিগ্রহণের জন্য অতিরিক্ত ১ হাজার ৪০০ কোটি টাকার প্রস্তাব অনুমোদন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, পদ্মা সেতু প্রকল্পে এর আগে মোট ব্যয় ধরা হয়েছিল (মূল সেতুতে তৃতীয় দফায় বাড়ানোসহ) ৩০ হাজার ৭৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলোর মধ্যে রয়েছে ই-পাসপোর্ট ও স্বয়ংক্রিয় বর্ডার নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন প্রকল্প, কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল স্থাপন, দেশব্যাপী ডিজিটাল টেরিস্ট্রিয়াল সম্প্রচার প্রবর্তন (১ম পর্যায়); ২১ জেলায় সুবিধাবঞ্চিত নারী ও শিশুর প্রাথমিক স্বাস্থ্য, প্রজনন স্বাস্থ্য ও পুষ্টিসেবা প্রদান; দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় ট্রান্সমিশন গ্রিড সম্প্রসারণ, ডিপিডিসির আওতায় ঢাকার কাওরানবাজারে ভূগর্ভস্থ উপকেন্দ্র নির্মাণ, লং টার্ম সার্ভিস এগ্রিমেন্ট ফর ভেড়ামারা কম্বাইন্ড সাইকেল পাওয়ার প্লান্ট, লাকসাম এবং চিনকী আস্তানার মধ্যে ডাবল লাইন ট্র্যাক নির্মাণ, সিগন্যালিংসহ টঙ্গী-ভৈরববাজার সেকশনে ডাবল লাইন নির্মাণ, ইটনা-মিঠামইন-অষ্টগ্রাম সড়ক নির্মাণ, বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের জন্য লজিস্টিকস ও ফ্লিট মেইনটেন্যান্স ফ্যাসিলিটিজ গড়ে তোলা প্রকল্প, ব্লু গোল্ড প্রোগ্রাম; তিনটি সিটি করপোরেশন, একটি পৌরসভা ও দুটি গ্রামীণ উপজেলায় এস্টাব্লিসেমেন্ট অব ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম প্রকল্প। এছাড়া জলবায়ু পরিবর্তনে স্থানীয় সরকারের উদ্যোগ বিষয়ে আরেকটি প্রকল্প একনেকে অনুমোদিত হয়েছে।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম প্রমুখ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া