দেশের খবর - July 25, 2018

৭ মার্চের স্থান উন্মুক্ত ও বঙ্গবন্ধু’র ভাস্কর্য নির্মাণের দাবী

ঢাবি প্রতিনিধি ।। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রদত্ত ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের স্মৃতি বিজড়িত স্থান দ্রুত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত এবং সেখানে মঞ্চ সম্বলিত বঙ্গবন্ধু’র ভাস্কর্য নির্মাণের দাবিতে অবস্থান কর্মসূচীর ৪র্থ দিন পালন করেছে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী সচেতন ছাত্রসমাজ।
শাহবাগ শিশু পার্কের ভিতরে বিকাল ৩ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত এই কর্মসূচী পালিত হয়। অবস্থান কর্মসূচীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সাধারণ সম্পাদক ও এই সংগঠনের সমন্বয়ক মোঃ আল মামুন বলেন, “বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার কাছে আমাদের প্রাণের দাবি শিশু পার্কের ভিতরে অযত্ন অবহেলায় পড়ে থাকা ঐতিহাসিক স্থানটি দ্রুত উন্মুক্ত করে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা হোক। মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসের ধারক বাহক জাতির পিতার স্মৃতি বিজড়িত জায়গা যেখানে দাড়িয়ে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। এই ঐতিহাসিক জায়গার পাশে আরেকটি জায়গায় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে পাকিস্তান বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছিলো। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ আমাদের আদর্শ ও চেতনা। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর চেতনা মুছে ফেলার জন্য অবৈধ স্বৈরশাসক জিয়া কৌশলে এই শিশু পার্ক নির্মাণ করে ৭ মার্চের ভাষণের জায়গাটি অবরুদ্ধ করে কৌশলে ঢেকে রাখে যাতে শিশুরা মহান মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জানতে না পারে। বারবার দাবি করার পরও আজ পর্যন্ত যথাযথ কর্তৃপক্ষ স্থান দুটি উন্মুক্ত করার ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি যা তরুণ প্রজন্মের কাছে অত্যন্ত দুঃখজনক। বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি বিজড়িত এই জায়গা দুটি দ্রুত উন্মুক্ত করে জাতির পিতা ও মহান মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্য নির্মাণ না করা পর্যন্ত আমাদের অবস্থান কর্মসূচী চালিয়ে যাবো। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার কাছে মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্মের দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি জাতির পিতার স্মৃতি বিজড়িত ঐতিহাসিক স্থানটি সবার জন্য উন্মুক্ত করে মঞ্চ সম্বলিত জাতির পিতার ভাস্কর্য নির্মাণের ব্যবস্থা করে দেয়া হোক।”
অবস্থান কর্মসূচীতে সংহতি প্রকাশ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক একেএম জামাল উদ্দিন।

 আরোও বক্তব্য রাখেন ঢাবির জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বুলবুল, শরীফুল ইসলাম সাগর, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান এর ঢাবির সাধারণ সম্পাদক অভিজিৎ সরকার, কেন্দ্রীয় মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শের সম্রাট খান, ঢাবি ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হাসানুর রহমান হাসু ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম রেজা, ইমরান জমাদ্দার, এস এম আমিরুল ইসলাম, তৌফিকুল ইসলাম, রিফাত উদ্দিন, মাহবুব হোসেন, ইমরান হোসেন সাদিদ সহ আরো অনেকে।

বক্তারা বলেন, প্রতিদিন বিকাল ৩ টা থেকে ৫ টা পর্যন্ত ৪ দফা দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচী আমরা চালিয়ে যাবো। বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার কাছে তরুণ প্রজন্মের ৪ দফা দাবীসমূহ:
১। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের স্মৃতি বিজড়িত ও মুক্তিবাহিনীর কাছে পাক-হানাদার বাহিনীর আত্মসমর্পণের জায়গা দুটি সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করতে হবে।
২। অযত্নে অবহেলায় পড়ে থাকা ঐতিহাসিক জায়গা দুটিতে বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ ও মুক্তিবাহিনীর কাছে পাক-বাহিনীর আত্মসমর্পণের মঞ্চ সম্বলিত ভাস্কর্য নির্মাণ করতে হবে।
৩। বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ মার্চ ভাষণের লিখিত রূপ (বাংলা ও ইংরেজিতে) প্রদর্শনের ব্যবস্থা করতে হবে।
৪। মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির অপরাধে অবৈধ সামরিক শাসক জিয়ার মরণোত্তর বিচার করতে হবে।

আরও পড়ুন