রাজশাহীতে কাউন্সিলর নির্বাচিত হলেন যারা

পাপন সরকার শুভ্র , রাজশাহী
আগস্ট ১, ২০১৮ ১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদেও নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে আওয়ামী লীগ। ৩০টি সাধারণ ওয়ার্ডের মধ্যে ২০টিতেই আওয়ামী লীগ সমর্থিতরা কাউন্সিলর পদে বিজয়ী হয়েছেন। অন্য ১০টি ওয়ার্ডের মধ্যে বিএনপির সাতজন, ওয়ার্কার্স পার্টির একজন ও স্বতন্ত্র দুইজন কাউন্সিলর হয়েছেন।

আর সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী কাউন্সিলর পদে তিনজন আওয়ামী লীগ, তিনজন বিএনপির, একজন ওয়ার্কার্স পার্টির, একজন জামায়াত ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ২ জন নির্বাচিত হয়েছেন।

সাধারণ ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিজয়ী কাউন্সিলররা হলেন :
১নং ওয়ার্ডে মোঃ রজব আলী,
২ নং ওয়ার্ডে মোঃ নজরুল ইসলাম,
৩ নং ওয়ার্ডে মোঃ কামাল হোসেন,
৪ নং ওয়ার্ডে মোঃ রুহুল আমিন টুনু,
৫ নং ওয়ার্ডে মোঃ কামরুজ্জামান কামরু,
৬ নং ওয়ার্ডে মোঃ নুরুজ্জামান টুকু,
১১ নং ওয়ার্ডে রবিউল ইসলাম তজু,
১২ নং ওয়ার্ডে সরিফুল ইসলাম বাবু,
১৩ নং ওয়ার্ডে আব্দুল মোমিন,
১৪ নং ওয়ার্ডে আনোয়ার হোসেন আনার,
১৭ নং ওয়ার্ডে শাহাদৎ আলী শাহু,
১৯ নং ওয়ার্ডে তৌহিদুল ইসলাম সুমন,
২০ নং ওয়ার্ডে রবিউল ইসলাম সরকার,
২১ নং ওয়ার্ডে নিযাম-উল-আযীম নিযাম,
২২ নং ওয়ার্ডে আব্দুল হামিদ সরকার টেকন,
২৩ নং ওয়ার্ডে মাহাতাব হোসেন চৌধুরী,
২৪ নং ওয়ার্ডে আরমান আলী,
২৫ নং ওয়ার্ডে তরিকুল আলম পল্টু,
২৯ নং ওয়াডে মাসুদ রানা শাহিন
৩০ নং ওয়ার্ডে শহিদুল ইসলাম পিন্টু।

বিএনপি সমর্থক কাউন্সিলররা হলেন
৯ নং ওয়ার্ডে রেজাউন নবী দুদু,
১৫ নং ওয়ার্ডে আব্দুস সোবহান লিটন,
১৬ নং ওয়ার্ডে বেলাল আহম্মেদ,
১৮ নং ওয়ার্ডে শহিদুল ইসলাম পচা,
২৬ নং ওয়ার্ডে আক্তারুজ্জামান কোয়েল,
২৭ নং ওয়ার্ডে আনোয়ারুল আমিন আজব

২৮ নং ওয়ার্ডে আশরাফুল হাসান বাচ্চু।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির মতিউর রহমান মতি ৭ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া ৯ নং ওয়ার্ডে এসএম মাহাবুবুল হক পাভেল ও ১০ নং ওয়ার্ডে আব্বাস আলী সরদার স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসাবে কাউন্সিলর নির্ভাচিত হয়েছেন।

সংরক্ষিত আসনে নির্বাচিত আওয়ামী লীগের নারী কাউন্সিলরা হলেন:

৪নং আসনে চশমা প্রতীকে শিরিন আরা খাতুন ৬,২২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আনারস প্রতীকের আলফাতুন্নেছা ৫,৯৬০ ভোট। ৬নং আসনে নির্বাচিত হয়েছেন হেলিকপ্টার প্রতীকে মাজেদা বেগম ১০,৪৮৩ ভোট; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন চশমা প্রতীকে মহসিনা বিল্লাহ ৫,২৬১ ভোট। ৭নং আসনে মোবাইল ফোন প্রতীকে উম্মে সালমা ৯,৪০০ ভোট; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন হেলিকপ্টার প্রতীকে নাজমা খাতুন ৮,৫৮০ ভোট।

বিএনপির নারী কাউন্সিলররা হলেন:

২নং আসনে নির্বাচিত হন গ্লাস প্রতীকের আয়েশা খাতুন ৫,৯৬৬ ভোট; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন জিপগাড়ি প্রতীকের আসমা-উল-হুসনা ৫,০২০ ভোট। ৩নং ওয়ার্ডে আনারস প্রতীকে মুসলিমা বেগম বেলী ৭,৪৪৯ ভোটে নির্বাচিত হন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন চশমা প্রতীকের নাফহাতুল জান্নাত ৪,৪৬১ ভোট। ৫নং আসনে চশমা প্রতীকে শামসুন্নাহার নির্বাচিত হন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন মোবাইল ফোন প্রতীকের সাইদা পারভীন ।

এছাড়া ১নং আসনে চশমা প্রতীকে তাহেরা খাতুন ১২,৫৪১ ভোট; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্টিল আলমারি প্রতীকের সেলিনা কুদ্দুস ৪,৩৮৩ ভোট। ৮নং আসনে জিপ গাড়ি প্রতীকে নাদিরা বেগম ১২,৫০৬ ভোট; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন নাজিরা বেগম মোবাইল ফোন প্রতীকে প্রাপ্তভোট ১,৯৯৩ ভোট। ৯নং আসনে হেলিকপ্টার প্রতীকে লাইলী বেগম ১০,৪৮১ ভোট; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন চশমা প্রতীকে ফেরদৌসি ১০,০৮৯ ভোট। ১০নং আসনে জামায়াতের চশমা প্রতীকে সামসুন নাহার নির্বাচিত হয়েছেন।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া