জাতীয় - আগস্ট ৩, ২০১৮

অপশক্তির উসকানিতে সাড়া দিও না : সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী

রাজধানীতে বাসচাপায় শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর নিরাপদ সড়কের দাবিতে গড়ে ওঠা শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ‘ছাত্রদল ও ছাত্র শিবিরের অনুপ্রবেশ ঘটছে-’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন মন্তব্যের পর শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তোমাদের উসকানি দিতে একটি অপশক্তি চেষ্টা করছে। তাদের উসকানিতে সাড়া দিও না।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে আরও বলেন, তোমরা শান্ত হও, ঘরে ফিরে যাও। আমরা ৯ দফা দাবির সবগুলো মেনে নিয়েছি। কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আহ্বান জানাচ্ছি, তারা যেন জনগণের স্বার্থে, নিজেদের লেখাপড়ার স্বার্থে ও ভবিষ্যতের স্বার্থে শান্ত থাকে। শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলন যেন অযৌক্তিক দিকে না যায় এরজন্য শিক্ষক, অভিভাবক ও ম্যানেজিং কমিটির সবাইকে এই দাবি শান্তিপূর্ণভাবে বাস্তবায়নের জন্য সহযোগিতার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা আশা করি, সহযোগিতা পাবো।

আজ শুক্রবার সকালে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর এক সভা শেষে তিনি এসব কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ সভায় সম্পাদকমণ্ডলীর অধিকাংশ সদস্য উপস্থিত ছিলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, কোমলমতি ছাত্রদের আন্দোলন নিয়ে নোংরা রাজনীতি শুরু হয়েছে। ছাত্রদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে যেসব ঘটনা ঘটার কথা না, তা ঘটছে।

শিক্ষার্থীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে কাদের বলেন, তোমরাই আগামী দিনের নেতা, আগামীর ভব্যিষ্যৎ। তোমাদের কাছে আমার অনুরোধ তোমরা শান্ত হও। তোমাদের প্রতিবাদী কণ্ঠকে সম্মান করে বলছি, দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে, শিক্ষাঙ্গনে সুন্দর পরিবেশের স্বার্থে, তোমাদের ভবিষ্যত নির্মাণে আমরা কাজ করছি। তোমাদের আন্দোলন ব্যর্থ করার জন্য একটি কুচক্রী মহল ষড়যন্ত্র করছে। তোমরা সে ষড়যন্ত্রে পা দিও না।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক আন্দোলনের ওপর বিএনপি-জামায়াত সওয়ার হয়েছে দাবি করে ওবায়দুল কাদের বলেন, এ আন্দোলনের মাধ্যমে তারা সরকার পতনের নিরাপদ সড়ক খুঁজছে।

মন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের ৯ দফা দাবি পাবলিক স্টেটমেন্ট করে আমরা মেনে নিয়েছি। তাদের এমন কোনো দাবি নেই যা আমরা মানতে অপরাগতা প্রকাশ করছি। এই ঘটনা কীভাবে হয়েছে তা গভীরভাবে তদন্ত করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী নিজে বিষয়টি মনিটরিং করছেন।

তিনি বলেন, গত ৯ বছরে বিএনপি-জামায়াত ৯ মিনিটও আন্দোলন করতে পারেনি। তারা কোটা আন্দোলনের ওপর ভর করেও সফলতা পায়নি। এখন কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের যৌক্তিক আন্দোলনের ওপর সওয়ার হয়েছে। যৌক্তিক দাবিকে অযৌক্তিক পথে নিয়ে যাওয়া ও ভিন্ন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের চক্রান্ত লক্ষ করছি। আমরা লক্ষ্য করছি, শিক্ষার্থীরা কিছু কিছু এলাকা থেকে এই কুচক্রী মহলদের বের করে দিয়েছে। এই মহলটি সন্ধ্যার পর বেশি তৎপর হয়। সন্ধ্যার পর অনেক ঘটনা ঘটেছে।

তিনি বলেন, আমাদের মন্ত্রী-এমপি অনেকেই নাজেহাল হয়েছেন। আমরা মনে করি, শিক্ষার্থীরা তাদের নাজেহাল করেনি। অনুপ্রবেশ করে মতলবি মহলটি অপকর্ম করেছে। সন্ধ্যার পর রাতের অন্ধকারে কার্যকলাপ শুরু করেছে। আমরা আমাদের নেতাকর্মীদের ধৈর্য ও সহিষ্ণুতা দেখাতে অনুরোধ করেছি। কোনো ধরনের উসকানির ফাঁদে না পড়তে নেতাকর্মীদের সতর্ক থাকতে বলেছি।

 


আরও পড়ুন