কৃষি - আগস্ট ৬, ২০১৮

ফুলপুরে ধানের ফসল কর্তন ও মাঠ দিবস পালিত

ফুলপুর উপজেলার ইমাদপুর গ্রামের কৃষক রজব আলীর জমিতে উৎপাদিত ব্রী ধান ৮২ এর ফসল কর্তন ও মাট দিবস অনুৃষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, কৃষি বিজ্ঞানী বাংলাদেশ ধান গবেষণা বিভাগের পরিচালক ফলিত গবেষণা বিভাগের সাবেক প্রধান ড. তমাল লতা আদিত্য। যার গবেষণা ও নেতৃত্বে নতুন জাতের ব্রি ৮২ ধান আবিস্কৃত হয়েছে। বিশেষ অতিথি ছিলেন, ফলিত গবেষনা বিভাগের উর্ধতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. বিশ্বজিত কর্মকার। সভাপতিত্ব করেন, য়মনসিংহ বিভাগীয় অতিরিক্ত পরিচালক মোঃ আসাদুল্লাহ।

অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন, ফুলপুর কৃষি অফিসার সুকল্প দাশ, ইমাদপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা জিয়াউর রহমান, ইদ্রিস আলী, সোহেল রানা প্রমুখ।

সভাপতির বক্তব্যে কৃষিবিদ মোঃ আসাদুল্লাহ বলেন, বোরো ধান করতে যে পরিমাণ সার ও পানি দিতে যে খরচ হয় আউস ধানে তা লাগে না বলে আউস আবাদ লাভজনক।

ড. বিশ্বজিত কর্মকার বলেন, উন্নতজাতের ধান চাষে কৃষকদের আগ্রহশীল করতে না পারলে উৎপাদন বাড়ানো সম্ভব হবে না। অনুষ্ঠানে উপস্থিত কৃষক নজরুল ইসলাম জানান, পাকা ধান খুবই সুন্দর দেখা যায় বলে আশপাশের অনেকেই রজব আলির ক্ষেত দেখতে আসছে।

অপর এক কৃষক আব্দুর রশিদ বলেন, আউস ধানের এমন ভাল ফলন হয় তা আগে তাদের জানা ছিল না। আগামীতে তারা কৃষক রজব আলীর কাছ থেকে বীজ নিয়ে ব্রী ৮২ জাতের ধান চাষ করবেন।

 


আরও পড়ুন