সরিষাবাড়ীতে স্ত্রীর হাতে স্বামী খুন

ক্রাইম রিপোর্ট , মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ
আগস্ট ৯, ২০১৮ ২:৪৪ অপরাহ্ণ

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীর হাতে স্বামী খুন হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার আরামনগর বাজারের জিএমসি কলোনিতে।

নিহত রকিবুল তরফদার রাব্বী সরিষাবাড়ীর শিমলা বাজারের কালু তরফদারের ছেলে। এ ঘটনায় স্ত্রী মৌটুসি(২০) ও শাশুড়ি হাসি বেগমকে আটক করেছে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ২ বছর আগে সরিষাবাড়ী শিমলা বাজারের খলিল তরফদারের ছেলে রকিবুল তরফদার রাব্বীর সাথে জামালপুর সদরের দিগপাইত এলাকার আবুল কাশেমের মেয়ে মৌটুসির বিয়ে হয়। বিয়ের পর আরমনগর বাজারে জিএমসি কলোনিতে সুরুজ মিয়ার বাসায় ভাড়াটিয়া হিসেবে বাস করতেন তারা। বিয়ের কিছুদিন যেতে না যেতেই তাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে কলহ শুরু হয়। বৃহস্পতিবার ভোরে স্বামী-স্ত্রী’র মধ্যে ঝগড়া-হাতাহাতির এক পর্যায়ে রকিবুল তরফদার মারাত্মক আহত হয়ে অচেতন হয়ে পড়েন।

রফিকুলকে সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত ডা. মমতাজ উদ্দিন মৃত ঘোষণা করেন।

হাসপাতালে লাশ রেখে পালানোর সময় স্থানীয় লোকজন আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ হাসপাতাল থেকে স্ত্রী মৌটুসি ও শাশুড়ি হাসি বেগমকে আটক ও লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

নিহতের ফুফু আইরিন আক্তার লাকি জানান, রকিবুল তরফদার পরিবারের ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিয়ে করে স্ত্রী মৌটুসীকে নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন। স্ত্রী মৌটুসি জামালপুর সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের বি এ ১ম বর্ষের ছাত্রী।

মৌটুসি পরকীয়ায় আসক্ত অভিযোগ তুলে তিনি বলেন, পরকীয়া আসক্তের পর থেকে রাব্বীকে সহ্য করতে পারতো না। এই নিয়ে প্রায়ই ঝগড়াঝাটি দাম্পত্য কলহ লেগেই থাকতো।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আরিফুল ইসলাম জানান, সরিষাবাড়ী হসপিটাল থেকে রকিবুল ইসলামের লাশ উদ্ধার করে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের চোখে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখমের চিহ্ন পাওয়া গেছে। স্ত্রী মৌটুসি বেগম ও শাশুড়ি হাসি বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেওয়া হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. রেজাউল ইসলাম খান বলেন, কি কারণে রাব্বীর মৃত্যু হয়েছে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে, ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পর বিস্তারিত বলা যাবে। এ ব্যাপারে মামলা দায়ে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

Comments are closed.