‘ওয়ান ইলেভেনের মত ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টির চক্রান্ত করছে বিএনপি’

রাজনৈতিক রিপোর্ট , মুক্তিযোদ্ধার কন্ঠ
আগস্ট ১৭, ২০১৮ ৪:০৯ অপরাহ্ণ

দেশে ওয়ান-ইলেভেনের থেকেও ভয়ংকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে বিএনপি নেতাদের এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন: ওয়ান-ইলেভেনের মতো ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি সৃষ্টির চক্রান্ত কিন্তু বিএনপি করেছে। মিডিয়ার একটি অংশ তাদের সহযোগিতা করেছে।

শুক্রবার মহাখালী বাস টার্মিনাল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

কাদের বলেন: ওয়ান ইলেভেনের কুশীলবদের সঙ্গে এখন মিডিয়ার একটি অংশ সহযোগিতা করছে। আমাদের দেশের মানুষ উন্নয়ন অর্জনে শেখ হাসিনার উপর খুশি। জনগণ উন্নয়নের পক্ষে রায় দিবে। এবারের নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার পক্ষে আবারও রায় দেবে বাংলার জনগণ। কেননা বিএনপি এবং তাদের দোসররা মুক্তিযুদ্ধের প্রতি আবারও হুমকি সৃষ্টি করছে।

নির্বাচনকালীন সরকারে বিএনপির অংশগ্রহণের সুযোগ থাকছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন: পার্লামেন্টে তাদের কোনো প্রতিনিধিত্ব নেই। যখন তাদের আসার সুযোগ ছিল তখন তারা আসেনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যন্ত তাদের অফার করা হয়েছিল। তারা সেটা গ্রহণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। এখনতো পার্লামেন্টে তাদের প্রতিনিধিত্ব নেই। আবার তাদের ডাকতে হবে এমন কোনো চিন্তা-ভাবনা আমাদের নেই।

টেকনোক্রেট থেকে নেওয়া হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন: টেকনোক্রেট একটি দল থেকে কেন নেবো? বাইরে অনেক লোক আছে।

সরকার যে পদ্ধতিতে নির্বাচনে যেতে চাচ্ছে সে পদ্ধতিতে নির্বাচন হলে বিএনপি আসবে না, বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের প্রেক্ষিতে ওবায়দুল কাদের বলেন: এখানে সরকারের কোন পদ্ধতি নেই। পদ্ধতি আমাদের সংবিধান নির্ধারণ করে দিয়েছে। সংবিধানের সাংবিধানিক দায়িত্ব অর্পিত থাকবে নির্বাচন কমিশনের উপর। সাংবিধানিকভাবে নির্বাচন কমিশন নির্বাচন অনুষ্ঠানে যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। অলরেডি নির্বাচন কমিশন ঘোষণা করেছে, তারা শতকরা ৯০ ভাগ প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।

লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের বিষয়ে তিনি বলেন: লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড কিভাবে হবে, তফসিল ঘোষণার পরপরই সেটা নির্বাচন কমিশনের হাতে চলে যাবে সরকারের কিছু করার থাকবে না।

ভারী বর্ষণ না হলে এবার জনসাধারণের ঈদযাত্রা আগের যেকোনো সময়ের তুলনায় স্বস্তিদায়ক হবে বলে মন্তব্য করেন সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী বলেন: আমাদের প্রধানমন্ত্রী ২৩ টি সেতু উদ্বোধন করেছেন। আমি আশা করছি, এবারের যাত্রা আরো স্বস্তিদায়ক হবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গত যে সমস্যাটা মূলত হয়েছিল- ফেনী রেল ওভারপাস, এবার ঈদে ঈদ উপহার হিসেবে এটাকে ৪ লেন থেকে ৬ লেনে উন্নত করে দেয়া হয়েছে।

যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ে অবগত আছেন জানিয়ে বলেন: আমি আজ যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেছি। যাত্রীদের কাছ থেকে অভিযোগের বিষয়টি জানতে চেয়েছি। একটা অভিযোগ পেয়েছি সিরাজগঞ্জের একটা কাউন্টার থেকে। তারা অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছে বলে আমার কাছে অভিযোগ করেছে যাত্রীরা। আমি সঙ্গে সঙ্গে কাউন্টারটি বন্ধ করে দিয়েছি। এছাড়া কোনো অভিযোগ আমার কাছে আসেনি, অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেব।

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.

সর্বশেষ পাওয়া